শনিবার, নভেম্বর ১৬

দঙ্গল-কন্যা ববিতা ফোগাট, কুস্তিগীর যোগেশ্বর দত্তকে হরিয়ানায় প্রার্থী করল বিজেপি

দ্য ওয়াল ব্যুরো : দুর্গাপুজোর পরেই ভোটের দঙ্গলে নামতে চলেছেন ববিতা ফোগাট ও যোগেশ্বর দত্ত। তাঁদের হরিয়ানার বিধানসভা নির্বাচনে প্রার্থী করেছে বিজেপি। সোমবার এই নাম ঘোষণা করেন হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহর লাল খট্টর।

রবিবার দিল্লিতে বিজেপির সদর দফতরে হরিয়ানার বিজেপি নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। তারপরেই সোমবার প্রথম পর্যায়ে ৭৮ জন প্রার্থীর নাম ঘোষণা করে বিজেপি। ববিতা ও যোগেশ্বর বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর গুঞ্জন ছিলই যে তাঁদের টিকিট দিতে পারে বিজেপি। সেটাই হল। দারি বিধানসভা কেন্দ্র থেকে লড়বেন ববিতা। যোগেশ্বরকে দেওয়া হয়েছে বরোদা কেন্দ্র। হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহর লাল খট্টর লড়বেন কারনাল বিধানসভা কেন্দ্র থেকে। বর্তমান বিধায়কদের মধ্যে ৩৮ জনকে ফের টিকিট দিয়েছে বিজেপি। সাতজন বিধায়কের নাম বাদ পড়েছে প্রার্থীতালিকা থেকে।

ঈদের দিন ববিতা ও তাঁর বাবা মহাবীর ফোগাট আনুষ্ঠানিক ভাবে যোগ দেন বিজেপিতে। জাঠ অধ্যুষিত এই রাজ্যে গতবার একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করেছিল বিজেপি। তারপর জাঠ নন এমন এক নেতাকে প্রথমবার মুখ্যমন্ত্রীও করেছিল বিজেপি। কিন্তু ভোট বড় বালাই। কুস্তিগীর বাবা-মেয়ের যোগদানের পর গুঞ্জন ওঠে জাঠদের খুশি করতেই মহাবীর ও তাঁর মেয়েকে দলে টেনেছে বিজেপি। মহাবীরের বড় মেয়ে গীতা অবশ্য রাজনীতি থেকে দূরেই রয়েছেন।

২০১০ সালে কমনওয়েলথ গেমসে ফ্রিস্টাইল কুস্তিতে সোনা জিতেছিলেন গীতা। কুস্তিতে ভারতীয় মহিলাদের সেই প্রথম কোনও আন্তর্জাতিক ইভেন্টে সোনা জেতা। ওই কমনওয়েলথ গেমসেই ৫২ কেজি ফ্রিস্টাইল কুস্তিতে রূপো জিতেছিলেন ববিতা। পরবর্তীকালে বহু আন্তর্জাতিক কুস্তি প্রতিযোগিতায় সফল হয়েছেন দুই বোন।

প্রথম ভারতীয় মহিলা কুস্তিগির হিসাবে সোনা জিতে গীতা অনেকটাই অমল আলোয় এলেও, বিশেষ যে প্রচার পেয়েছিলেন তা নয়। এমনিতে ক্রিকেটের মতো ‘কুলীন’ খেলা নয় কুস্তি। কিন্তু পরবর্তী কালে মহাবীর ও তাঁর দুই মেয়ের উত্থান নিয়ে আমির খান সিনেমা বানান, ‘দঙ্গল’ (হিন্দি অর্থ আখাড়া)। মহাবীরের ভূমিকায় অভিনয় করেন আমির নিজে। গীতার ভূমিকায় অভিনয় করেন ফাতিমা সানা শেখ ও ববিতার ভূমিকায় ছিলেন সানিয়া মলহোত্রা। বক্স অফিসে হিট করে যায় সেই ছবি। রাতারাতি আরও জনপ্রিয় হয়ে যান গীতা ও ববিতা।

বলতে গেলে দঙ্গল হিট করার পরই মহাবীর ফোগাটকে দ্রোণাচার্য পুরস্কার দেয় নরেন্দ্র মোদী সরকার। এ দিন বিজেপি দফতরে ববিতা বলেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে তিনি ভীষণ পছন্দ করেন। সেই ২০১৪ সাল থেকে মোদী ভক্ত তিনি।

ববিতার মতো ভারতীয় পুরুষ কুস্তিগীরদের মধ্যে অন্যতম যোগেশ্বর দত্ত যোগ দেন বিজেপিতে। তাঁর যোগদানের পরেও গুঞ্জন উঠেছিল ভোটের ময়দানে ভূমিপুত্র যোগেশ্বর বিজেপির প্রার্থী হতে পারেন। তালিকা প্রকাশের পর সেটাই দেখা গেল।

 

Comments are closed.