২৪ ঘণ্টায় দেশে আক্রান্তের থেকে সুস্থ হয়েছেন বেশি, একদিনে বাড়ি ফিরেছেন প্রায় ৯৬ হাজার

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের বুলেটিন অনুসারে আজ শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর সকাল ৮টা পর্যন্ত ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা মোট ৫৩,০৮,০১৪। এখনও পর্যন্ত দেশে কোভিড সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে মোট ৮৫,৬১৯ জনের। সংক্রমণ সারিয়ে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪২,০৮,৪৩১ জন। ভারতে এখন অ্যাকটিভ কেস ১০,১৩,৯৬৪। ভারতের ক্রমবর্ধমান কোভিড পরিসংখ্যানের মধ্যেও আশার কথা একটাই যে এখন দেশে করোনাজয়ীর সংখ্যা অ্যাকটিভ রোগীর চার গুণেরও বেশি।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৯৩,৩৩৭ জন। সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে ১২৪৭ জনের। আর ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৯৫,৮৮১ জন। দেশে এখন সুস্থতার হার ৭৯.২৮ শতাংশ। আর মৃত্যুহার ১.৬১ শতাংশ। দৈনিক সুস্থতার সংখ্যায় আজ রেকর্ড হয়েছে ভারতে।

পরিসংখ্যান অনুযায়ী দৈনিক সংক্রমণ গতকালের তুলনায় হাজার তিনেক কম। গতকাল দৈনিক সংক্রামিত হয়েছিলেন (বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে শুক্রবার সকাল ৮টা)  ৯৬,৪২৪ জন। অর্থাৎ গতকালের তুলনায় ব্যবধান ৩০৮৭ জন। এছাড়াও অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যাও কমেছে প্রায় ৩৮০০। গতকালের তুলনায় আজ অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা ৩৭৯০ জন কমেছে। তবে গতকালের তুলনায় দৈনিক মৃতের সংখ্যা বেড়েছে ৭৩ জন। প্রসঙ্গত, গতকাল (২৪ ঘণ্টার হিসেবে বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে শুক্রবার সকাল ৮টা) কোভিড সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছিল ১১৭৪ জনের। আর সংক্রমণ সারিয়ে সুস্থ হয়ে উঠেছিলেন ৮৭,৪৭২ জন।

ভারতের কোভিড পরিসংখ্যানে শীর্ষে রয়েছে মহারাষ্ট্র। এখানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১১ লক্ষ পেরিয়েছে। মহারাষ্ট্রে এখনও পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন মোট ১১,৪৫,৮৪০ জন। সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে ৩১,৩৫১ জনের। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৮,১২ ,৩৫৪ জন। মহারাষ্ট্রে অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা ৩,০২,১৩৫।

দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে অন্ধ্রপ্রদেশ। এখানে আক্রান্তের সংখ্যা ৬,০১,৪৬২। কোভিড সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে ৫১৭৭ জনের। সংক্রমণ সারিয়ে সুস্থ হয়েছেন ৫,০৮,০৮৮ জন। অন্ধ্রপ্রদেশে অ্যাকটিভ কেস ৮৮,১৯৭।

তৃতীয় স্থানে রয়েছে তামিলনাড়ু। এখানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৫,২৫,৪২০। সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে ৮৬১৮ জনের। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪,৭০,১৯২ জন। তামিলনাড়ুতে অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা ৪৬,৬১০।

চতুর্থ স্থানে রয়েছে কর্নাটক। এখানে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪,৯৪,৩৫৬ জন। এখনও পর্যন্ত কর্নাটকে কোভিড সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে ৭৬২৯ জনের। সংক্রমণ সারিয়ে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩,৮৩,০৭৭ জন। কর্নাটকে এখন অ্যাকটিভ কেস ১,০৩,৬৫০।

পঞ্চম স্থানে রয়েছে উত্তরপ্রদেশ। এখানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৩,৩৬,২৯৪। সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে ৪৭৭১ জনের। সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন ২,৬৩,২৮৮ জন। উত্তরপ্রদেশে অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা ৬৮,২৩৫।

ষষ্ঠ স্থানে রয়েছে রাজধানী শহর দিল্লি। এখানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২,৩৪,৭০১। কোভিড সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে ৪৮৭৭ জনের। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১,৯৮,১০৩ জন। দিল্লিতে অ্যাকটিভ কেস ৩১,৭২১।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

You might also like

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More