শুক্রবার, ডিসেম্বর ৬
TheWall
TheWall

যাত্রা শুরু বন্দে ভারত এক্সপ্রেসের, দেখে নিন কী বিশেষ সুবিধে আছে এই ট্রেনে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বৃহস্পতিবার আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করল দিল্লি-কাটরা বন্দে ভারত এক্সসপ্রেস। রাজধানী থেকে জম্মু-কাশ্মীরের কাটরা পর্যন্ত যাবে এই ট্রেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এই ট্রেনের সূচনা করেন।

ট্রায়াল রান আগেই সারা হয়ে গিয়েছিল। আজ থেকে চালু হল পরিষেবা। অমিত শাহ এই ট্রেনের উদ্বোধনে গিয়ে বলেন, ২০২২ সালের মধ্যে ৪০টি বন্দে ভারত এক্সপ্রেস চালু করার পরিকল্পনা রয়েছে কেন্দ্রের। সেই লক্ষ্যেই এগোচ্ছে মোদী সরকার। প্রথম বন্দে ভারত এক্সপ্রেস চালু হয় দিল্লি-বারাণসী রুটে। এই ট্রেনের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

যাত্রীদের স্বাচ্ছন্দ্যের কথা মাথায় রেখে এই ট্রেনে বেশ কিছু বন্দোবস্ত করা হয়েছে। এক নজরে দেখে নিন বন্দে ভারত এক্সপ্রেস সম্পর্কে কিছু তথ্য।

  • পরীক্ষামূলক যাত্রায় বন্দে ভারত এক্সপ্রেসের গতি ছিল প্রতি ঘণ্টায় ১৮০ কিলোমিটার। তবে যাত্রী নিয়ে এই ট্রেন ছুটবে ১৩০ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টার গতিতে।
  • দিল্লি থেকে কাটরা যেতে সময় লাগে মোটামুটি ১২ ঘণ্টা। বন্দে ভারত এক্সপ্রেসে মাত্র ৮ ঘণ্টাতেই গন্তব্যে পৌঁছে যাবেন যাত্রীরা।
  • এই ট্রেনে রয়েছে ১৬টি কোচ। দু’টি ড্রাইভার কার, দু’টি এক্সিকিউটিভ চেয়ার কার এবং ১২টি চেয়ার কার কোচ থাকবে ট্রেনে।
  • প্রতিটি কোচেই থাকবে প্রতিবন্ধী সহায়ক টয়লেটের ব্যবস্থা। প্রতিটি কোচেই রাখা হয়েছে পৃথক প্যান্ট্রিকার। রয়েছে সিসিটিভির নজরদারির ব্যবস্থা।
  • এই ট্রেনের প্রতিটি কোচে থাকা এলইডি স্ক্রীনে পরবর্তী স্টেশনের নাম আর স্টপেজ সম্পর্কে তথ্য জানিয়ে দেওয়া হবে।
  • ট্রেনটি প্রতিটি দরজা স্বয়ংক্রিয়। স্টেশন এলে তা নিজে থেকেই খুলবে। ট্রেন ছাড়ার পরে তা নিজে থেকেই বন্ধ হয়ে যাবে।
  • ট্রেনের যে কোনও যান্ত্রিক ত্রুটি মেরামত করার জন্য ১৫ থেকে ২০ জন টেকনিক্যাল স্টাফ থাকবেন বন্দে ভারত এক্সপ্রেসে। কোনও সমস্যা হলে সঙ্গে সঙ্গে কর্মীরা তা ঠিক করে দেবেন।

 

 

Comments are closed.