বৃহস্পতিবার, মার্চ ২১

‘হিন্দুধর্ম আমাদের অন্যকে অসম্মান করতে শেখায় না’, মোদীকে খোঁচা কেজরিওয়ালের

দ্য ওয়াল ব্যুরো : মহারাষ্ট্রের বিজেপি মুখপাত্র অভধুত ওয়াঘ শুক্রবার আম আদমি পার্টি প্রধান তথা দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে পাকিস্তানের কর্নেল বলে মন্তব্য করেছিলেন। সেই টুইটের জবাবে প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে টুইট করলেন কেজরিওয়াল। বললেন, চাইলে তাঁর লোকেরাও অসম্মানজনক কথা বলতে পারেন, কিন্তু তাঁরা হিন্দু, তাই এ রকম করেন না।

শুক্রবার মহারাষ্ট্রের বিজেপি মুখপাত্র অভধুত ওয়াঘ একটি টুইট করে বলেন, “পাকিস্তান সেনার এক সিক্রেট কর্নেল ভারতে লুকিয়ে পাকিস্তানের জন্য কাজ করছে। তার নাম আল- হারামি- বিন- কমীনা- মহম্মদ- কঞ্জরওয়াল-খান।” এরপর #অরবিন্দ কেজরিওয়াল লেখেন তিনি। এর থেকেই পরিষ্কার তাঁর আক্রমণের লক্ষ্য ছিলেন কেজরিওয়াল।

এই টুইটের পরেই প্রতিবাদ করা হয় আপের তরফে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উদ্দেশে টুইট করে কেজরিওয়াল বলেন, “প্রধানমন্ত্রীজি, আপনি ওঁকে টুইটারে ফলো করেন। অর্থাৎ উনি আপনার লোক। আমরাও চাইলে অন্যকে অসম্মান করে কথা বলতে পারতাম। কিন্তু আমাদের হিন্দু সংস্কৃতি আমাদের অন্যকে অসম্মান করতে শেখায় না।”

আম আদমি পার্টি নেত্রী প্রীতি শর্মা বিজেপি মুখপাত্রকে গণতন্ত্রের নামে লজ্জা বলে উল্লেখ করেছেন। সংবাদসংস্থা পিটিআই সূত্রে খবর, তিনি বলেন, “মহারাষ্ট্রের সাধারণ মানুষের মনে ধর্ম নিয়ে ঘৃণা ও হিংসা ছড়ানোর চেষ্টা করার জন্য তাঁর বিরুদ্ধে মহারাষ্ট্র পুলিশের পদক্ষেপ নেওয়া উচিত।”

তবে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও বিজেপিকে হিন্দুত্ব নিয়ে এই প্রথমবার খোঁচা দিলেন না কেজরিওয়াল। এর আগেও তিনি বিজেপিকে ধর্ম নিয়ে আক্রমণ করেছেন। গত বছর উত্তরপ্রদেশের লখনৌতে এক পুলিশকর্মীর গুলিতে ৩৮ বছরের বিবেক তিওয়ারির খুন নিয়েও বিজেপির বিরুদ্ধে ধর্ম নিয়ে আক্রমণ করেছিলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী। সেই সময় তিনি বলেছিলেন, “তারা একজন হিন্দু, বিবেক তিওয়ারিকে কেন মারলো? বিজেপি নেতারা মহিলাদের ধর্ষণ করেও পার পেয়ে যাচ্ছে। সবাই ভালো করে দেখুন, বিজেপি হিন্দুদের ভালো চায় না। ক্ষমতায় আসার জন্য যদি সব হিন্দুকে খুন করতে হয়, বিজেপি দু’বার ভাববে না।” তিনি আরও বলেন, “বিবেক তিওয়ারি একজন হিন্দু ছিলেন। বিজেপি হিন্দুদেরও রক্ষা করতে চায় না।”

কেজরিওয়ালের এই মন্তব্যের পর বিজেপির তরফে বিরাট সমালোচনা হয়েছিল। একটা খুনকে এভাবে ধর্মের রং লাগানোর জন্য কেজরিওয়ালের সমালোচনা করেছিলেন বিজেপি নেতারা।

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, বিজেপির তাসে বিজেপিকেই ঘায়েল করার চেষ্টা করছেন কেজরিওয়াল। বিজেপি ও সংঘ নেতারা বিভিন্ন জায়গায় হিন্দুত্ব প্রতিষ্ঠার দাবি করে থাকেন। সেই হিন্দুত্বকেই বিজেপির বিরুদ্ধে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছেন কেজরিওয়াল। আর নির্বাচন সামনে আসতেই সেই আক্রমণ বেড়েছে, এমনটাই মত পর্যবেক্ষকদের।

আরও পড়ুন

‘নয়া পাকিস্তান’ জঙ্গিদের বিরুদ্ধে ‘নয়া অ্যাকশান’ নিয়ে দেখাক, কটাক্ষ ভারতের

Shares

Comments are closed.