‘হাম রাস্তে মে হ্যায়’ উড়ন্ত দুর্গ থেকে হিন্দিতে টুইট ট্রাম্পের, নিরাপত্তার চাদরে মুড়েছে দিল্লি, আগ্রা, আহমেদাবাদ

মার্কিন প্রেসিডেন্টের সুরক্ষায় মোতায়েন ১০ হাজার পুলিশকর্মী। আকাশপথে চলছে নজরদারি। সেজে উঠে দিল্লি, আগ্রা, আহমেদাবাদ।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

    দ্য ওয়াল ব্যুরো: আর কয়েক ঘণ্টার অপেক্ষা। আমেরিকা থেকে রওনা দিয়ে দিয়েছে তাঁর বিমান ‘এয়ার ফোর্স ওয়ান’। সপরিবারে আহমেদাবাদের মাটি ছুঁয়ে ফেলবেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সোমবার সকালেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আহমেদাবাদে পৌঁছে গেছেন। মার্কিন প্রেসিডেন্টকে স্বাগত জানিয়ে টুইট করে বলেছেন, “অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে ভারত।” তার উত্তরে হিন্দিতে টুইট করে ট্রাম্প বলেছেন, ‘‘ভারতে আসার জন্য আমরাও আগ্রহী। মাঝপথে আছি। আর কিছুক্ষণের মধ্যে সবার সঙ্গে দেখা হবে।’’

    আজ সকাল ১১টা ৪০মিনিট নাগাদ গুজরাতের সর্দার বল্লভভাই পটেল বিমানবন্দরে অবতরণ করবে ট্রাম্পের বিমান ‘এয়ার ফোর্স ওয়ান’। কাউন্টডাউন শুরু হয়ে গিয়েছে। নিরাপত্তা থেকে অ্যাপ্যায়ন-সব কিছুরই ব্যবস্থা একেবারে ‘এ ওয়ান।’ ট্রাম্পের  সঙ্গে আসছেন তাঁর মেয়ে-জামাই ইভাঙ্কা ট্রাম্প ও জ্যারেড কুশনার। নিরাপত্তার চাদরে মুড়ে ফেলা হয়েছে সর্দার প্যাটেল মার্গের ডিপ্লোম্যাটিক এনক্লেভে পাঁচতারা হোটেল আইটিসি মৌর্য। এখানকারই ‘চাণক্য’ স্যুইটে সপরিবারে থাকবেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। সেখান থেকে ট্রাম্প যাবেন সবরমতী আশ্রমে। তার পর যোগ দেবেন মোতেরা স্টেডিয়ামে ‘নমস্তে ট্রাম্প’ অনুষ্ঠানে। সেখানেও প্রস্তুতি সারা। বিশ্বের বৃহত্তম ক্রিকেট স্টেডিয়াম হিসেবে মোতেরার উদ্বোধন করবেন ট্রাম্প।

    আহমেদাবাদে কয়েক ঘণ্টা কাটিয়ে বিকেলেই সস্ত্রীক ট্রাম্প পৌঁছবেন আগ্রায় তাহজমহল দেখতে। সূত্রের খবর, ট্রাম্প-পত্নী মেলানিয়া সূর্যাস্তের পরে তাজমহল দেখতে বেশি আগ্রহী। তাই আহমেদাবাদে ট্রাম্পের সফরসূচী কিছুটা কাটছাঁট করা হয়েছে। তবে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে স্বাগত জানাতে কোনও ত্রুটিই রাখছে না ঐতিহাসিক শহর আহমেদাবাদ। সর্দার বল্লভভাই পটেল বিমানবন্দর থেকে আহমেদাবাদ পর্যন্ত দীর্ঘ ২২ কিলোমিটার রাস্তা সেজে উঠেছে নানা পোস্টার, হোর্ডিংয়ে। থাকছে নাচ-গান এবং ‘রোড শো’-এর ব্যবস্থা। মোতায়েন করা হয়েছে ১০ হাজার পুলিশকর্মী। তা ছাড়াও নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকছে মার্কিন সিক্রেট সার্ভিস, ন্যাশনাল সিকিউরিটি গার্ড (এনএসজি) এবং স্পেশাল প্রোটেকশন গ্রুপ (এসপিজি)।

    আরও পড়ুন:  ‘মেলানিয়া দেখো কেমন সেজেছে আহমেদাবাদ’

    মার্কিন প্রেসিজেন্টের অভ্যর্থমায় সেজে উঠেছে রাজধানী শহরও। বিকেল সাড়ে তিনটে নাগাদ ট্রাম্প চলে যাবেন আগ্রায়। সেই ওয়াশিংটন থেকেই তাজমহলে সূর্যাস্ত দেখার ইচ্ছা প্রকাশ করে রেখেছেন ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্প। ট্রাম্প-দম্পতির মন ভরাতে যুদ্ধকালীন গতিতে  গত এক সপ্তাহ ধরে চলেছে রাজধানীর রূপচর্চা।  যমুনার দুর্গন্ধ দূর করতে বাড়ানো হয়েছে জলের স্রোত। ব্রিটিশ আমলের একটি জং ধরা ওভারব্রিজকে রুপোলি রঙের মেটালিক স্প্রে করা হয়েছে। তাজে ‘মাড প্যাক’ লাগিয়ে তার জেল্লা ফেরানোর চেষ্টা চলছে। তাজের কাছে রাস্তার দু’ধারে এলইডি আলো, ফুলের টব, কমতি নেই কোনও কিছুরই। এমনকি বাঁদরদের উৎপাত কমাতে কাজে নামানো হয়েছে পাঁচটি পেল্লায় চেহারার হনুমানকেও।

    তাজ দেখে বিকেলেই ট্রাম্প পৌছবেন দিল্লি।  আমেরিকার ভিভিআইপি অতিথিদের জন্য নতুন করে সাজানো হয়েছে নয়াদিল্লির পুষ্প বিহারের পাঁচতারা হোটেলটি। হোটেলের বিলাসবহুল সুবিশাল গ্র্যান্ড প্রেসিডেন্সিয়াল স্যুইটটি আরও ঝাঁ-চকচকে করে বরাদ্দ করা হয়েছে ট্রাম্প দম্পতির জন্য। এই স্যুইটেই আগে থেকে গিয়েছেন প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জিমি কার্টার, বিল ক্লিন্টন, জর্জ বুশ থেকে বারাক ওবামা। নিরাপত্তার কারণে মঙ্গলবার পর্যন্ত গোটা হোটেলটিই ফাঁকা করে দেওয়া হয়েছে। মার্কিন প্রতিনিধিরা ছাড়া অন্য কেউই এই হোটেলে ঘর পাবেন না ট্রাম্প থাকাকালীন। খাবারের একটি বিশেষ পদ তৈরি করা হচ্ছে হোটেল কর্তৃপক্ষের তরফে, যার নাম দেওয়া হয়েছে ‘ট্রাম্প প্ল্যাটার।  তবে সেই ডিসে কী কী চমক থাকছে সেটা এখনই জানাতে চায়নি হোটেল কর্তৃপক্ষ।

    মঙ্গলবার সকাল ১০টায় রাষ্ট্রপতি ভবনের ফোরকোর্টে সেরিমোনিয়াল রিসেপশন। রাতে ব্যাঙ্কোয়েট হলে হবে এলাহি নৈশভোজ। তার আগে সাক্ষাৎ হবে রামনাথ কোবিন্দ ও ডোনাল্ড ট্রাম্পের। মার্কিন প্রেসিডেন্টকে অভ্যর্থনা জানাতে ফুল আর আলোর রোশনাইয়ে সেজে উঠছে রাষ্ট্রপতি ভবন।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

You might also like

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More