সোমবার, অক্টোবর ১৪

ভাড়া নিয়ে ঝগড়া, মেরে যাত্রীর নাক ফাটাল ক্যাব চালক

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ভাড়া নিয়ে বচসা। তার জেরে মেরে যাত্রীর নাক ফাটিয়ে দিল ক্যাব চালক।

এই ঘটনা ঘটেছে বেঙ্গালুরুতে। অভিযোগ উঠেছে বিখ্যাত ক্যাব সংস্থা উবারের বিরুদ্ধে। জানা গিয়েছে, গত সপ্তাহের বুধবার ক্যাব চালকের হাতে আক্রান্ত হন বছর তেইশের যুবক অনীক রায়। একটি শেয়ার ক্যাব বুক করেছিলেন অনীক। হুডি থেকে কেম্পেগোডা বিমানবন্দরে যাওয়ার কথা ছিল তাঁর। পুলিশ জানিয়েছে, দুর্গাপুজোয় কলকাতায় বাড়ি ফিরছিলেন অনীক। তাই এয়ারপোর্ট যাওয়ার জন্য একটি শেয়ার ক্যাব বুক করেছিলেন তিনি।

অনীকের অভিযোগ, ক্যাবে ওঠার পরেই চালক তাঁকে পুরো ভাড়া মিটিয়ে দিতে বলে। রাজি হননি অনীক। তাঁর কথায়, “উবের পুল বুক করেছিলাম আমি। ওঠার পরেই ড্রাইভার উবের গো-র হিসেবে ভাড়া চাইছিল। তাই টাকা দিতে চাইনি।” এরপরেই ওই চালক তাঁকে রাইড ক্যানসেল করে দিতে বলেন। স্বভাবতই এ বারেও রাজি হননি অনীক। তিনি বলেন, “তখন ক্যানসেল করলে আমায় একস্ট্রা চার্জ দিতে হত। তাই ক্যানসেল করিনি।” এরপর ওই চালকের বিরুদ্ধে সংস্থায় অভিযোগ জানানোর কথা বলেন অনীক। ব্যাস। এতেই শুরু হয় ঝামেলা।

কথা কাটাকাটি পৌঁছে যায় হাতাহাতিতে। হরিশ নামের ক্যাব চালক সটান ঘুষি মারে অনীকের নাকে। আচমকাই এমন আঘাতের জন্য একেবারেই প্রস্তুত ছিলেন না অনীক। নাক ফেটে রক্ত ঝরতে থাকে তাঁর। অভিযোগ, অনীকের ব্যাগও ছুড়ে রাস্তায় ফেলে দেয় অই চালক। অনীকের অভিযোগ, কেবল নাকে ঘুষি মেরেই ক্ষান্ত হয়নি ক্যাব চালক। কিল-চড়-লাথি সবই চলতে থাকে।

সে সময় স্থানীয় এক দোকানদারের নজরে আসে গোটা ব্যাপারটা। তিনিই গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেন। ক্যাব চালককে চলে যেতেও বলেন। তবে এখানেই ভোগান্তির শেষ নয়। এয়ারপোর্ট পৌঁছেও সেদিনের ফ্লাইটে ওঠার অনুমতি পাননি তিনি। কারণ তখনও তাঁর নাক ফেটে রক্ত ঝরছিল। তাড়াতাড়ি তাঁকে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয় স্থানীয় হাসপাতালে। পরের দিন অর্থাৎ বৃহস্পতিবার কলকাতা ফেরার ফ্লাইট ধরেন অনীক। ওই ক্যাব চালকের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগও দায়ের করেন তিনি। বিভিন্ন অপরাধের অভিযোগে হরিশ নামের ওই ক্যাব চালককে আটক করা হলেও এখনও পর্যন্ত তাকে গ্রেফতার করা হয়নি।

Comments are closed.