শুক্রবার, নভেম্বর ২২
TheWall
TheWall

#Breaking: গান্ধী পরিবার বিনা গীত নেই, সনিয়াই ফের কংগ্রেস সভানেত্রী

দ্য ওয়াল ব্যুরো: গান্ধী পরিবারের বাইরে বেরোতে পারল না কংগ্রেস। রাহুল গান্ধী সভাপতি হবেন না, মনস্থির করে নেওয়ার পর ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকে প্রাক্তন সভানেত্রী সনিয়া গান্ধীর উপরেই ভরসা দেখালেন কংগ্রেসের বর্ষীয়ান নেতারা। শেষ পর্যন্ত অন্তর্বর্তী কংগ্রেস সভানেত্রী হিসেবে ঘোষণা করা হলো সনিয়া গান্ধীর নাম।

কংগ্রেসের নতুন প্রেসিডেন্ট কে হবেন, তা নিয়ে দিনভর বৈঠক করে ওয়ার্কিং কমিটি। এমনকী রাহুল গান্ধীর প্রস্তাবে দেশের পাঁচটি প্রাদেশিক অঞ্চলের নেতাদের সঙ্গে কথা বলার জন্য পাঁচটি কমিটিও গঠন করা হয়। কিন্তু তারপরেও সমাধানসূত্র বেরোয়নি। বেশিরভাগ নেতা রাহুলকেই কংগ্রেসের সভাপতি থেকে যাওয়ার জন্য অনুরোধ করেন। কিন্তু নিজের অবস্থানে অনড় ছিলেন তিনি।

সূত্রের খবর, কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটির তরফ থেকে সনিয়া গান্ধীকে অনুরোধ করা হয়, রাহুল না হলে তিনি যেন কংগ্রেস সভানেত্রীর পদে বসেন। ইতিমধ্যেই রাত ৮টা থেকে ফের বৈঠক শুরু হয়। রাহুল, সনিয়াও সেখানে যোগ দেন। অবশেষে রাত ১১টা নাগাদ কংগ্রেসের বর্ষীয়ান নেতা গুলাম নবি আজাদ জানান, সনিয়া গান্ধীকেই অন্তর্বর্তী সভানেত্রী নির্বাচন করা হয়েছে।

কংগ্রেস সভানেত্রী হিসেবে আগেও নিজের দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন সনিয়া। সীতারাম কেশরীর পর সর্বভারতীয় রাজনীতিতে কংগ্রেসের গ্রাফ যখন নিম্নমুখী, তখন সনিয়া এসেই পার্টির হাল ধরেছিলেন। একটানা ১৫ বছরের উপর দলের সভানেত্রী ছিলেন সনিয়া। সভানেত্রী হওয়ার পর কংগ্রেসকে ক্ষমতাতেও আনেন তিনি। সেই সরকার ১০ বছর টিকেছিলে।

কিন্তু তারপর বয়সের কারণে সরে দাঁড়ান সনিয়া। কংগ্রেসের সভাপতি হন রাহুল গান্ধী। কিন্তু উনিশের লোকসভায় তিনি সফল হননি। তারপরেই সভাপতির পদ ছাড়তে চান রাহুল। তিনি জানিয়েছিলেন, গান্ধী পরিবারের বাইরে থেকে কাউকে কংগ্রেস সভাপতি করা হোক। অন্তর্বর্তী সভাপতি হিসেবে ৯০ বছর বয়সী মতিলাল ভোরার নামও ঘোষণা করে কংগ্রেস।

এ দিনের এই সিদ্ধান্তের পর রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের একাংশের মতে, যতই সনিয়া, রাহুল চান না কেন, কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটি জানত, গান্ধী পরিবারের বাইরে থেকে কাউকে সভাপতি করলে দলকে ভাঙনের হাত থেকে বাঁচানো কঠিন। কারণ, সনিয়ার যে কম্যান্ড রয়েছে, তা দলের সর্বস্তরে কারও নেই। আর কংগ্রেসের এই সংকটের মুহূর্তে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে কাউকে গিনিপিগ বানিয়ে কোনও লাভ নেই। তাই রক্ষণশীল সিদ্ধান্তই নিল কংগ্রেস। ফের সনিয়াকেই অন্তর্বর্তী সভানেত্রী করা হলো।

Comments are closed.