বুধবার, নভেম্বর ২০
TheWall
TheWall

এসপিজি-কে চিঠি সনিয়ার, ২৮ বছরের সম্পর্কের জন্য ধন্যবাদ জানালেন কংগ্রেস সভানেত্রী

দ্য ওয়াল ব্যুরো: দীর্ঘ ২৮ বছর ধরে নিরাপত্তা দেওয়ার পরে গান্ধী পরিবারের নিরাপত্তার দায়িত্ব থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে স্পেশ্যাল প্রোটেকশন গ্রুপকে। তার পরিবর্তে দেওয়া হয়েছে সিআরপিএফ নিরাপত্তা। এই সিদ্ধান্তের পরেই প্রতিবাদ করা হয়েছে কংগ্রেসের তরফে। তবে যাঁদের নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিল এই এসপিজি, তাঁরা কিন্তু ধন্যবাদই জানালেন স্পেশ্যাল প্রোটেকশন গ্রুপকে। আগের দিন টুইট করে ধন্যবাদ জানিয়েছিলেন রাহুল গান্ধী। এবার কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধী চিঠি লিখে নিজের ধন্যবাদ জানালেন এসপিজিকে।

এদিন সনিয়া চিঠি লেখেন স্পেশ্যাল প্রোটেকশন গ্রুপের ডিরেক্টর অরুণ কুমার সিনহাকে। চিঠিতে তিনি লেখেন, “যেদিন থেকে আমাদের এসপিজি নিরাপত্তা দেওয়া হয়েছিল সেদিন থেকেই আমরা অনেক বেশি সুরক্ষিত বোধ করেছি। আমরা বুঝতে পেরেছি সবথেকে ভাল হাতে রয়েছি আমরা। দীর্ঘ ২৮ বছর ধরে প্রতিদিন পেশাদারী মনোভাব, কাজের প্রতি দায়িত্ব ও দায়বদ্ধতা দেখিয়ে তাঁরা আমাদের সুরক্ষা দিয়েছেন। এসপিজি কম্যান্ডোরা অনেক বেশি দক্ষতা ও দেশভক্তির মাধ্যমে নিজেদের কাজ করেছেন। আমি আশা করব আগামী দিনেও একই দায়বদ্ধতা ও পেশাদারী মনোভাব দেখিয়ে নিজেদের কাজ করে যাবে এসপিজি।”

সনিয়ার এই চিঠির পরে রাজনৈতিক মহলের একাংশের বক্তব্য, ২৮ বছরের এই সম্পর্ককে সম্মান জানাল গান্ধী পরিবার। রাহুল ও সনিয়া বোঝাতে চাইলেন এই দায়বদ্ধতা ও সুরক্ষার জন্য তাঁরা কতটা কৃতজ্ঞ। সেইসঙ্গে মোদী সরকারকেও একটা জবাব দিলেন তাঁরা। বোঝালেন যতই তাঁদের নিরাপত্তা তুলে নেওয়া হোক না কেন, এসপিজি-র সঙ্গে এত বছরের সম্পর্ক তাঁরা ভুলতে পারেননি। তাই এই সম্মান জানিয়েছেন।

১৯৯১ সালে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধী জঙ্গিদের হাতে নিহত হওয়ার পর থেকে গান্ধী পরিবারের সদস্যদের এসপিজি কভার দেওয়া হয়। ১৯৮৪ সালে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী নিহত হওয়ার এক বছর বাদে স্পেশ্যাল প্রোটেকশন ফোর্স বা এসপিজি গঠন করা হয়। সেই বাহিনীতে ৩ হাজার সদস্য আছেন। ভিভিআইপিদের নিরাপত্তা দেওয়া তাঁদের কাজ।

রাজীব গান্ধীর মৃত্যুর পর এসপিজি আইনে পরিবর্তন করে বলা হয়, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ও তাঁদের পরিবার ১০ বছর স্পেশাল প্রোটেকশন গার্ডের সুরক্ষা পাবেন। ২০০৩ সালে অটলবিহারী বাজপেয়ী সরকারের আমলে সেই আইনে পরিবর্তন করে বলা হয়, ১০ বছর নয়, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর পরিবার এক বছর এসপিজি প্রোটেকশন পাবেন। তারপর খতিয়ে দেখা হবে, তাঁদের কতদূর নিরাপত্তা দেওয়ার প্রয়োজন আছে।

গান্ধী পরিবারের দু’জন জঙ্গিদের হাতে নিহত হয়েছেন। তাঁরা বরাবরই দেশের সবচেয়ে সুরক্ষিত পরিবারগুলির অন্যতম। একমাত্র প্রধানমন্ত্রী ও আরও অল্প কয়েকজন অত সুরক্ষা পেয়ে থাকেন। গত অগস্টে সরকার প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং-এর এসপিজি কভার তুলে নিয়েছে। এর আগে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী এইচ ডি দেবেগৌড়া ও ভি পি সিং-এর এসপিজি সুরক্ষাও তুলে নেওয়া হয়। অটলবিহারী বাজপেয়ী অবশ্য আমৃত্যু স্পেশাল প্রোটেকশন গ্রুপের ঘেরাটোপে থেকেছেন।

Comments are closed.