শুক্রবার, এপ্রিল ২৬

দেশ জানে বাংলায় গণতন্ত্র নেই, মমতাকে খোঁচা মামাজির

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বাংলায় প্রচার শুরু করেছেন বুধবার। বৃহস্পতিবার বিজেপি রাজ্য দফতরে সাংবাদিক সম্মেলন করে বাংলার গণতন্ত্র নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে খোঁচা মেরে গেলেন মামাজি তথা মধ্যপ্রদেশের সদ্য প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান। তিনি বলেন, “বাংলায় গণতন্ত্রের লেশমাত্র নেই। এবং গোটা দেশ এই পরিস্থিতির কথা জানে।” তিনি আরও বলেন, “পঞ্চায়েত নির্বাচনে যে কাণ্ড করেছে মমতার দল, তা কোনও সভ্য সমাজে হয় না।”

রথযাত্রা বাতিল হওয়ার পরই বঙ্গ বিজেপি সিদ্ধান্ত নিয়েছিল রাজ্য জুড়ে গণতন্ত্র বাঁচাও সভা হবে। সেই সভাগুলিতে নিয়ে আসা হবে কেন্দ্রীয় বিজেপি-র শীর্ষ নেতাদের। সেই কর্মসূচি অনুযায়ী এ বার বাংলায় প্রচারে এসেছেন মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান। বুধবার তিনি সভাও করেন  খড়্গপুরের মোহনপুরে। বৃহস্পতিবার কালীঘাট মন্দিরে পুজো দিয়ে যান বিজেপি রাজ্য দফতরে।

দু’মাস আগেই ভোট হয়েছিল মধ্যপ্রদেশে। তিনিই ছিলেন গেরুয়া সরকারের মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু এ বার সেখানে হেরেছে বিজেপি। কংগ্রেস সরকারের মুখ্যমন্ত্রী হয়েছেন কমলনাথ। সেই প্রসঙ্গ তুলে মামাজি বলেন, “আমাদেরও তো সরকার ছিল। কিন্তু আমরা হারলাম। এটাই তো গণতন্ত্র। আমরা যদি বাংলার মতো ভোট করতাম তাহলে কি সেখানে কংগ্রেস জিততে পারত?”

রাজীব কুমার কাণ্ড নিয়েও দিদির বিরুদ্ধে তোপ দাগেন শিবরাজ। বিজেপি রাজ্য দফতরে বসে তিনি বলেন, “সিবিআই ঠেকাতে মুখ্যমন্ত্রী ধর্ণায় বসছেন। উর্দির তোয়াক্কা না করে পুলিশ কমিশনারও সেখানে গিয়ে বসে পড়ছেন। কিন্তু এ সব দেখে দেশের মানুষ সাদা-কালো বুঝে গিয়েছেন।”

এমনিতেই বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ বাংলায় এসে বলা শুরু করে দিয়েছেন, লোকসভায় এ বার ২৩টি আসনে পদ্মফুল ফুটবে। শুধু তো বাংলায় এসে নয়, গতকাল পশ্চিম উত্তরপ্রদেশের সভা থেকেও তৃণমূলের বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি ছুড়ে দিয়েছেন। এ দিন শিবরাজও বলেছেন “বাংলায় মারধর করে বিজেপি-কে ঠেকানো যাবে না। তৃণমূল যত মারবে, বিজেপি তত বাড়বে।”

মামার আক্রমণকে অবশ্য এক্কেবারেই গুরুত্ব না দিয়ে শাসক দলের এক মুখপাত্র বলেন, “বাংলার অর্ধেক লোক শিবরাজের নামই জানেন না। আর বিজেপি-র কী করুণ দশা ভাবুন, হেরো মুখ্যমন্ত্রীকে এনে বাংলায় প্রচার করতে হচ্ছে।”

Shares

Comments are closed.