সোমবার, জানুয়ারি ২০
TheWall
TheWall

ব্যাঙ্কের শেয়ার মূল্য পড়ে গেল অনেকটাই, দশটি ব্যাঙ্ককে মিশিয়ে চারটি করার ঘোষণা করেছিলেন অর্থমন্ত্রী

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

দ্য ওয়াল ব্যুরো: শুক্রবার শেয়ার বাজার বন্ধ হওয়ার পর নয়াদিল্লিতে সাংবাদিক বৈঠক করেছিলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন। তিনি ঘোষণা করেছিলেন, দশটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ককে মিশিয়ে দিয়ে চারটি ব্যাঙ্কে পরিণত করা হবে।
শুক্রবারের পর থেকে তিন দিন শেয়ার বাজার বন্ধ ছিল। সোমবার তা খুলতেই রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলির শেয়ার মূল্য পড়তে শুরু করে দিল।

কপোর্রেশন ব্যাঙ্কের শেয়ার মূল্য প্রায় ৯.৩ শতাংশ পড়েছে। শেয়ার পিছু দাম হয়েছে ১৭.১০ টাকা। পঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্কের শেয়ারও ৮.৫৪ শতাংশ পড়ে ৫৯.৪০ হয়েছে। একই সঙ্গে পড়েছে কানাড়া ব্যাঙ্কের শেয়ারের দামও। ৭.৫৪ শতাংশ কমে তা হয়েছে ২০৩.৯০ টাকা। গত এক বছরের মধ্যেই এটাই কানাড়া ব্যাঙ্কের সর্বনিম্ন শেয়ার মূল্য। একই রকম গতি প্রকৃতি দেখা যায় ইউনাইটেড ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ার শেয়ারের দামের ক্ষেত্রেও। গত ৫২ সপ্তাহের মধ্যে এ দিন ইউবিআইয়ের শেয়ারের দামও ছিল সর্বনিম্ন,- ৫৪.৯০ টাকা। এ ছাড়াও এলাহাবাদ ব্যাঙ্কের শেয়ারও এ দিন সামান্য পড়েছে। তবে অন্ধ্র ব্যাঙ্ক এবং সিন্ডিকেট ব্যাঙ্কের শেয়ারের দাম ছিল উর্ধ্বমুখী।

ব্যাঙ্ক মার্জারের সিদ্ধান্তের নেপথ্যে কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী বলেছিলেন, ছোট রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের ঋণ দেওয়ার ক্ষমতা কম। তাদের ব্যবসার আয়তন কম বলে ঝুঁকি নেওয়ার ক্ষমতাও কম। সেই কারণেই তাদের মিশিয়ে দেওয়া হল। আবার অর্থ সচিব রাজীব কুমার বলেছিলেন, নতুন ব্যবস্থায় পূর্বতন ২৭ টি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক কমে গিয়ে মোট ১২ টি ব্যাঙ্ক হবে। এর মধ্যে কয়েকটি ব্যাঙ্ক তৈরি হবে। বড় ব্যাঙ্ক বিশ্ব বাজারে কারবার করবে, মাঝারি ব্যাঙ্ক দেশীয় বাজারে ব্যবসা বাড়াবে এবং ছোট রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক স্থানীয় বাজারে কাজ করবে।

এ দিন শেয়ার বাজারে গতি প্রকৃতি দেখে অর্থমন্ত্রকের কর্তারা বলেন, শনিবার ও রবিবার বাজার এমনি বন্ধ থাকে। সোমবার গণেশ চতুর্থীর জন্য শেয়ার বাজার বন্ধ ছিল। মঙ্গলবার ব্যাঙ্ক মার্জার নিয়ে প্রাথমিক প্রতিক্রিয়া দেখা গিয়েছে। এটা স্থায়ী হবে না। কারণ, মিশিয়ে দেওয়ার ফলে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলির আর্থিক কাঠামো আরও মজবুত হবে। ব্যবসা ও ঋণ দেওয়ার ক্ষমতা বাড়বে। ফলে অদূর ভবিষ্যতে তাদের শেয়ার মূল্য বাড়ার সম্ভাবনাই বেশি।

Share.

Comments are closed.