শুক্রবার, জানুয়ারি ২৪
TheWall
TheWall

সোমবার থেকে খুলছে কাশ্মীরের স্কুল ও সরকারি অফিস

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আস্তে আস্তে স্বাভাবিক হচ্ছে উপত্যকা! জম্মু-কাশ্মীরের স্থানীয় প্রশাসন বাস্তব পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, সমস্ত সরকারি দফতর এবং স্কুল খোলা হবে সোমবার থেকে। সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি-কে কাশ্মীর প্রশাসনের এক শীর্ষ আধিকারিক জানিয়েছেন, “প্রতিদিনের পরিস্থিতি পর্যালোচনা করা হচ্ছে। আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি সোমবার থেকে সরকারি অফিস এবং স্কুল আবার খোলা হবে।”

৩৭০ ধারা বিলোপের দিন তিনেক আগে থেকেই কাশ্মীরে ইন্টারনেট এবং ফোন পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়া হয়। জম্মুতে কিছু জায়গায় সাময়িক পরিষেবা চালু হলেও তা মোটেই সার্বিক ছিল না। কাশ্মীর টাইমস-এর সম্পাদক অনুরাধা ভাসিন দাবি জানিয়েছেন, দ্রুত যোগাযোগ ব্যবস্থা স্বাভাবিক করা হোক। সেই সঙ্গে তিনি এ-ও দাবি জানিয়েছেন, উপত্যকার বেশ কিছু  জায়গায় সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধিরা স্বাধীন ভাবে কাজ করতে পারছে না। তা করতে দেওয়া হোক।

চারশোর বেশি রাজনৈতিক নেতা এখনও আটক উপত্যকায়। প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহেবুবা মুফতির কন্যা দাবি করেছেন, তাঁর মায়ের সঙ্গে প্রশাসন পশুর মতো আচরণ করছে। সিপিএম বিধায়ক ইউসুফ তারিগামি বলেছেন, তাঁকে বারান্দায় বেরোতে দিচ্ছে না প্রশাসন। সব মিলিয়ে কাশ্মীরের পরিস্থিতি স্বাভাবিক করা প্রশাসনের পক্ষেও একটা চ্যালেঞ্জ।

তবে কার্ফু, ইন্টারনেট বন্ধ ইত্যাদি নিয়ে একটি মামলার প্রেক্ষিতে দেশের শীর্ষ আদালত ইতিমধ্যেই বলে দিয়েছে, “এক রাতে কাশ্মীরের পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে না। ওখানে শান্তি ফেরাতে সময় লাগবে। কেন্দ্র সেই সময় নিক। আমরা চাই উপত্যকায় শান্তি বিরাজ করুক।”

কাশ্মীর নিয়ে অন্য একটি মামলার শুনানিতে শুক্রবার প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ বলেন, “আমি সংবাদমাধ্যমে পড়েছি, আজ বিকেল থেকেই ল্যান্ড লাইন এবং ব্রডব্র্যান্ড চালু হয়ে যাবে।” অ্যাটর্নি জেনারেল কে বেণুগোপাল বলেন, “নিরাপত্তাবাহিনীর উপর ভরসা রাখুন। পরকাশ্মীরের শান্তি ফরবেই।”

৩৭০ ধারা বিলোপের পর ইদ এবং স্বাধীনতা দিবস গিয়েছে। বড় কোনও গণ্ডগোলের ঘটনা ঘটেনি কাশ্মীরে। তবে বিভিন্ন জায়গা থেকে বিক্ষিপ্ত গণ্ডগোলের খবর মিলেছে। এখন দেখার সোমবার সরকারি দফতর এবং স্কুল খোলার সঙ্গে সঙ্গে উপত্যকা আদৌ স্বাভাভিক ছন্দে ফেরে কি না।

Share.

Comments are closed.