সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৩

সংরক্ষণ প্রশ্নে ‘সুস্থ তর্কের’ প্রস্তাব মোহন ভাগবতের

দ্য ওয়াল ব্যুরো : সংরক্ষণ নিয়ে মন্তব্য করে অতীতে বিতর্কের মুখে পড়েছিলেন রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘ প্রধান মোহন ভাগবত। তাই এ বার সংরক্ষণ নিয়ে আলোচনার ক্ষেত্রে সম্প্রীতির বার্তা শোনা গেল তাঁর মুখে। বললেন, সংরক্ষণ নিয়ে অবশ্যই আলোচনা হবে, তা তা যেন সুস্থ আলোচনা হয়।

রবিবার দিল্লিতে ইন্দিরা গান্ধী ন্যাশনাল ওপেন ইউনিভার্সিটিতে সঙ্ঘের শিক্ষা সংস্কৃতি উত্থান ন্যাসের উদ্যোগে ‘জ্ঞান উৎসবে’ গিয়েছিলেন সরসঙ্ঘ প্রধান মোহন ভাগবত। সেখানেই তিনি বলেন, সংরক্ষণ নিয়ে আগেও তিনি অনেক কথা বলেছেন। কিন্তু সে ক্ষেত্রে প্রধান বিষয় থেকে বেরিয়ে গিয়ে অন্য বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে বেশি। এমনকী আলোচনার মধ্যে রাজনীতি ঢুকে পড়ায় তা আলোচনার বাইরে বেরিয়ে গিয়েছিল বলেই মন্তব্য করেন তিনি। আর তাই এ দিন এই প্রস্তাব দেন তিনি। মোহন ভাগবত বলেন, “যাঁরা সংরক্ষণের পক্ষে কথা বলছেন, ও যাঁরা বিপক্ষে কথা বলছেন, দু’তরফের কথাই মাথায় রাখতে হবে আমাদের। বিষয়টা যেন শুধুমাত্র আলোচনার মধ্যেই থাকে, যে ব্যাপারেও খেয়াল রাখতে হবে আমাদের।”

এই অনুষ্ঠানে বিজেপির প্রসঙ্গও তুলে আনেন সরসঙ্ঘ প্রধান। তিনি বলেন, আরএসএস, বিজেপি দল ও কেন্দ্রের সরকার সম্পূর্ণ আলাদা। কারও কাজের জন্য অন্য কেউ দায়ী থাকে না। বিজেপির মধ্যে সঙ্ঘের প্রভাব নিয়ে কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন, “বিজেপি ও কেন্দ্রীয় সরকারে সঙ্ঘের অনেক কর্মী রয়েছেন। তার ফলে তাঁরা আরএসএস-এর কথা শোনেন। তার মানে এই নয়, সব কিছুতেই তাঁরা আমাদের সঙ্গে একমত হবেন। অনেক বিষয়ে আমাদের মত আলাদা হয়।”

মোহন ভাগবত বলেন, সরকার ও দল এক বিষয় নয়। দলের কাছে সংগঠন অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু যখনই সেই দল ক্ষমতায় আসে, তখন সেই সরকারের কাছে সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে দাঁড়ায় দেশের উন্নয়ন। তাই তখন দল গৌণ হয়ে যায় বলেই মনে করেন ভাগবত।

Comments are closed.