শুক্রবার, ডিসেম্বর ৬
TheWall
TheWall

ব্যাঙ্ক জালিয়াতি ৭৪ শতাংশ বেড়ে গিয়েছে, রিজার্ভ ব্যাঙ্কের আপৎকালীন তহবিল কমে গিয়েছে ১৫ শতাংশ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আর্থিক ব্যবস্থাপনার প্রশ্নে যখন ঘরোয়া রাজনীতিতে সমালোচনার মুখে নরেন্দ্র মোদী সরকার, তখন বৃহস্পতিবার রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ার বার্ষিক রিপোর্ট আরও চাপ তৈরি করে দিল।

ওই বার্ষিক রিপোর্টে স্পষ্টতই বলা হয়েছে, মোদী সরকারের প্রথম মেয়াদের শেষ আর্থিক বছরে অর্থাৎ ২০১৮-১৯ আর্থিক বছরে ব্যাঙ্ক জালিয়াতির হার বেড়ে গিয়েছে ৭৪ শতাংশ। হিসাব অনুযায়ী ৭১,৫৪৩ কোটি টাকার জালিয়াতি হয়েছে বলে জানাচ্ছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। যা তার আগে আর্থিক বছরের তুলনায় প্রায় ৩০ হাজার কোটি টাকা বেশি।

সম্প্রতি রিজার্ভ তাঁদের ভাঁড়ার থেকে কেন্দ্রের সরকারকে ১ লক্ষ ৭৬ হাজার কোটি টাকা দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে। রিজার্ভ ব্যাঙ্ক গঠিত বিমল জালান কমিটির সুপারিশ মতেই ওই টাকা সরকারকে দিয়েছে এই কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্ক। এর মধ্যে ৫২ হাজার কোটি টাকা রিজার্ভ ব্যাঙ্কের আপৎকালীন তহবিল থেকে দেওয়া হয়েছে।

রিজার্ভ বার্ষিক রিপোর্টে বলা হয়েছে, এর ফলে তাদের আপৎকালীন তহবিল ১৫ শতাংশ কমে গিয়েছে। বর্তমানে ওই তহবিলের পরিমাণ হল, ১ লক্ষ ৯৬ হাজার কোটি টাকা।

চোদ্দ সালে কেন্দ্রে সরকারের গঠনের পর নরেন্দ্র মোদী-র প্রধান প্রতিশ্রুতি ছিল যে তিনি দুর্নীতিমুক্ত প্রশাসন কায়েম করবেন। বিরোধীদের বক্তব্য, ব্যাঙ্ক জালিয়াতি ৭৪ শতাংশ বেড়ে যাওয়া কি আদৌ তার লক্ষণ? নাকি শাসক দলের প্রশ্রয়েই জালিয়াতি হয়েছে?

রিজার্ভ ব্যাঙ্কের বার্ষিক রিপোর্টে বলা হয়েছে, মূলত রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলি থেকেই বেশি জালিয়াতি হয়েছে। এর পর রয়েছে বেসরকারি ব্যাঙ্ক এবং বিদেশি ব্যাঙ্ক। ধার নিয়ে শোধ না দেওয়ার মতো ঘটনাই বেশি। অন্যান্য ধরনের জালিয়াতি তুলনায় নগণ্য। যেমন, ইন্টারনেট জালিয়াতি ইত্যাদি হয়েছে মাত্র ০.৩ শতাংশ।

তবে এ সব সত্ত্বেও রিজার্ভ ব্যাঙ্কের নিজস্ব রাজস্ব আয় বেড়েছে অনেকটাই,– ১৪৬.৫৯ শতাংশ। শুধু মাত্র সুদ বাবদ আয় বেড়েছে ৪৪.৬২ শতাংশ। ৮৬,১৯৯ কোটি টাকা থেকে বেড়ে তা হয়েছে ১ লক্ষ ৬ হাজার কোটি টাকা।
রিজার্ভ ব্যাঙ্কের স্বর্ণ ভাণ্ডারও গত আর্থিক বছরের তুলনায় বড় হয়েছে। এই কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্কের কাছে ৫৬৬.২৩ মেট্রিক টন সোনা ছিল। তা ৫১.৯৩ মেট্রিক টন বেড়ে হয়েছে ৬১৮.১৬ মেট্রিক টন।

Comments are closed.