শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ২০

জাতের অঙ্ক কষে লখনউতে রাজনাথের বিরুদ্ধে প্রার্থী শত্রুঘ্ন-পত্নী পুনম

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বিজেপি-র সঙ্গে সম্পর্ক চুকিয়ে শত্রুঘ্ন সিনহা এ বার কংগ্রেসের কালো ঘোড়া। ‘বিহারীবাবু’কে পাটনা সাহিব কেন্দ্র থেকে প্রার্থী করেছে কংগ্রেস-আরজেডি জোট। শুধু শত্রুঘ্নই নন। তাঁর স্ত্রী পুনম সিনহাও নামতে চলেছেন ভোটের লড়াইয়ে। জানা গিয়েছে উত্তরপ্রদেশের রাজধানী লখনউতে রাজনাথ সিং-এর বিরুদ্ধে সমাজবাদী পার্টি এবং বহুজন সমাজ পার্টির জোট প্রার্থী হচ্ছেন পুনম।

উত্তরপ্রদেশ কংগ্রেসের এক শীর্ষ নেতা, একটি সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন, বিজেপি-বিরোধী শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ করতে লখনউয়ে প্রার্থী দেবে না কংগ্রেস। সমর্থন করা হবে বুয়া-ভাতিজার জোট প্রার্থী একদা ‘মিস ইয়ং ইন্ডিয়া’ পুনম সিনহাকে।

পর্যবেক্ষকদের মতে, অনেক অঙ্ক কষেই মায়া-অখিলেশের জোট লখনউ থেকে প্রার্থী করছে পুনমকে। দফায় দফায় হোম ওয়ার্ক সারার পরই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। কেন? তথ্য বলছে লখনউ কেন্দ্রে সাড়ে তিন লক্ষ মুসলিম ভোটারের পাশাপাশি রয়েছে চার লক্ষ কায়েস্থ এবং এক লক্ষ ৩০ হাজারের মতো সিন্ধি ভোটার। পুনম সিনহা আসলে সিন্ধি। আবার অন্য দিকে বিবাহ সূত্রে কায়েস্থ।

এমনিতে উত্তরপ্রদেশের ভোট বরাবরই জাতপাতের অঙ্কের উপর নির্ভরশীল। পর্যবেক্ষকদের অনেকের মতে, সেই সব দিক বিবেচনা করেই মায়া-অখিলেশদের সঙ্গে জোটে যায়নি কংগ্রেস। কারণ অনেকের মতে, কংগ্রেস যদি নিজের প্রতীকে প্রার্থী না দেয়, তাহলে উচ্চবর্ণের হিন্দু ভোটের বেশ কিছুটা বিজেপি-র ঝুলিতে যেতে পারে। সমাজবাদী পার্টি বা বহুজন সমাজ পার্টির দলিত বা নিম্ন বর্ণের প্রার্থীদের পক্ষে সেই ভোট টানা সম্ভব নয়। রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, এটা যে হঠাৎ করে মনে হয়েছে এমনতা নয়। গত বছর উত্তরপ্রদেশের কাইরানা, গোরক্ষপুর এবং ফুলপুরের উপনির্বাচনের কংগ্রেস আলাদা লড়েছিল। এবং দেখা গিয়েছিল, যে পরিমাণ ভোট কংগ্রেস পেয়েছে, কাছাকাছি ব্যবধাণে জিতেছে সমাজবাদী পার্টি বা বহুজন সমাজ পার্টির  প্রার্থীরা। যোগী আদিত্যনাথের শক্ত ঘাঁটিতেও এই অঙ্কের সামনে বিজেপি-কে মুখ থুবড়ে পড়তে হয়েছিল।

যদিও উত্তরপ্রদেশের এক বিজেপি নেতা সররবভারতীয় একটি সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন, “লখনউ বরাবর বিজেপি-র ঘাঁটি। এখানকার মানুষ বারবার বিজেপি-কে সমর্থন জুগিয়েছেন। বিরোধীরা যতই অঙ্ক কষুক। লখনউয়ে লাভের লাভ কিচ্ছু হবে না।”

Comments are closed.