বুধবার, জানুয়ারি ২২
TheWall
TheWall

‘সে নো টু ইন্ডিয়া’, ভারতের সঙ্গে সবরকম সাংস্কৃতিক আদানপ্রদান বন্ধের সিদ্ধান্ত পাকিস্তানের

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কাশ্মীরের উপর থেকে ৩৭০ ধারা তুলে নেওয়ার পর থেকেই ভারতের এই সিদ্ধান্তের কড়া নিন্দে করেছে পাকিস্তান। ইমরান খানের সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, ভারতের সঙ্গে কোনও রকমের সাংস্কৃতিক আদানপ্রদান করবে না পাকিস্তান। এমনকী দু’দেশের বিনোদন দুনিয়ার মধ্যেও কোনও রকমের আদানপ্রদান হবে না, এমনটাই জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

পাকিস্তানের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রক শুক্রবার একটি স্লোগান চালু করেছে, যার নাম ‘সে নো টু ইন্ডিয়া।’ তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রকের মুখপাত্র ফিরদৌস আশিক আওয়ান জানিয়েছেন, “সব ধরণের ভারতীয় বিষয় দেখানো বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। পাকিস্তান ইলেকট্রনিক মিডিয়া রেগুলেটরি অথরিটিকে ( পেমরা ) নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, কোনও কেবল অপারেটর যাতে ভারতীয় কিছু না দেখায়, সে ব্যাপারে কড়া নজর রাখতে।”

আওয়ান আরও জানিয়েছেন, ভারতের বিভিন্ন বিষয় টিভিতে দেখার ফলে পাকিস্তানের যুব সম্প্রদায়ের চিন্তাভাবনা কলুষিত হচ্ছে। পাকিস্তানের ন্যাশনাল সিকিওরিটি কাউন্সিল একটি গ্রুপ তৈরি করেছে। এই গ্রুপের মাধ্যমে পাকিস্তান সব দিক থেকে ভারতের এই হিন্দুত্ববাদী মানসিকতার বিরুদ্ধে লড়াই করবে।

পাক তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রক সূত্রে আরও জানানো হয়েছে, ভারতের বিনোদন জগতের সঙ্গে যুক্ত কাউকে পাকিস্তানে ঢোকার অনুমতি দেওয়ার ক্ষেত্রে কড়া হতে চলেছে পাক বিদেশ মন্ত্রক। বলা হয়েছে, ভারত ও পাকিস্তানের বর্তমান পরিস্থিতিতে দু’দেশের মধ্যে কোনও রকমের সাংস্কৃতিক আদানপ্রদান হওয়া সম্ভব নয়। আর তাই এই ‘সে নো টু ইন্ডিয়া’ ক্যাম্পেন চালু করা হয়েছে।

এর আগে পাকিস্তানের তরফে জানানো হয়েছিল, সেখানে কোনও ভারতীয় ছবির প্রদর্শন করা যাবে না। এ বার শুধু সিনেমা নয়, যে কোনও ধরণের নাটক, সিরিয়াল তথা ভারতীয় যে কোনও সাংস্কৃতিক বিষয়কে নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। অবশ্য এই প্রথম নয়, পুলওয়ামাতে সেনা কনভয়ে জঙ্গি হামলার পরেও একই ধরণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। অবশ্য তখন এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল ভারতের তরফে।

Share.

Comments are closed.