মঙ্গলবার, অক্টোবর ১৫

সংসার চালাতে হাতে নিয়েছিলেন তুলি, ইতালির প্রদর্শনীতে ৮০ বছরের আদিবাসী বৃদ্ধার আঁকা ছবি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বয়স যে কেবলই একটা সংখ্যা তা আরও একবার প্রমাণিত হল। মধ্যপ্রদেশের ৮০ বছরের আদিবাসী মহিলার আঁকা ছবি প্রদর্শিত হচ্ছে ইতালির প্রদর্শনীতে। এই কীর্তিতে অবশ্য বিন্দুমাত্র বিচলিত নন যোধাইয়া বাই বৈগা। নিজের শিল্পকর্মে সারাদিন ডুবে রয়েছেন তিনি।

মধ্যপ্রদেশের উমারিয়া জেলার লোরহা গ্রামের বাসিন্দা এই যোধাইয়া বাই বৈগা। প্রায় ৪০ বছর আগে তাঁর স্বামী মারা যান। তারপর একাকীত্বে ভুগতেন। মন ভালো রাখার জন্য ও সংসার চালানোর জন্য হাতে তুলে নিয়েছিলেন তুলি। সেই শুরু। তারপর এত বছর ধরে শুধু ছবিই এঁকেছেন তিনি। সেই ছবি বিক্রি করেই সংসার চলত। অনেকেই তাঁর ছবির তারিফ করতেন। কিন্তু সেই ছবি যে আন্তর্জাতিক মহলে এভাবে প্রদর্শনীতে জায়গা করে নেবে তা স্বপ্নেও ভাবেননি যোধাইয়া।

ইতালির মিলানে একটি প্রদর্শনীতে যোধাইয়ার আঁকা ছবি জায়গা করে নিয়েছে। সেখানেও তাঁর ছবির তারিফ হচ্ছে। বিক্রিও হচ্ছে ছবি।

এই খবর পাওয়ার পর যোধাইয়া জানান, “আমি সব ধরণের প্রাণী এবং যা কিছু চোখে দেখি তাই আঁকি। ছবি আঁকার জন্য আমি ভারতের নানা অঞ্চল ঘুরেছি। আমি আঁকা ছাড়া এখন আর কিছুই করি না। আমার জীবনসঙ্গী ৪০ বছর আগে মারা যান, তারপর থেকেই আমি আঁকতে শুরু করেছি। বেঁচে থাকার জন্য এবং পরিবারের যত্ন নেওয়ার জন্য আমাকে কিছু করতেই হত। তাই আমি ছবি আঁকাকেই বেছে নিয়েছিলাম।” তিনি আরও বলেন, “আমি খুব আনন্দ পেয়েছি যে আমার ছবি আন্তর্জাতিক মঞ্চে স্বীকৃতি পেয়েছে।”

যোধাইয়াকে প্রথম থেকে আঁকা শিখিয়েছেন আশিস স্বামী। এই স্বীকৃতি পাওয়ার পর তাঁর বক্তব্য, “নিজের ব্যথা এবং যন্ত্রণাকে পেছনে ফেলে রেখে সবসময় যোধাইয়া আঁকাতে মনোনিবেশ করেছেন। তাঁর চিত্রকর্ম ইতালিতে প্রদর্শিত হচ্ছে। আমি তাঁর জন্য সত্যিই খুশি। তবে আমার মনে হয় যোধাইয়ার আরও অনেক কিছু অর্জন করার রয়েছে। আশা করি আগামী দিনে তা অর্জনও করবেন উনি।”

Comments are closed.