শনিবার, সেপ্টেম্বর ২১

দুর্নীতির অভিযোগ, ১৫ সরকারি আধিকারিককে বরখাস্ত করল নবীন পট্টনায়েক সরকার

দ্য ওয়াল ব্যুরো : প্রশাসনে দুর্নীতি ঠেকাতে বড় পদক্ষেপ নিলেন ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়েক। দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছিল, এমন ১৫ সরকারি আধিকারিককে বরখাস্ত করলেন তিনি। সেই সঙ্গে প্রশাসনিক স্তরে বড় রদবদলও করেছেন ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রী।

শনিবার এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে ওড়িশা সরকারের তরফে। একটি বিবৃতি দিয়ে এ কথা জানিয়েছে সরকার। এই বিবৃতিতে বলা হয়েছে, যে ১৫ জন অফিসারের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে তাঁদের বরখাস্ত করা হয়েছে। তাঁদের বিরুদ্ধে বিচারবিভাগীয় তদন্ত শুরু করারও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। তদন্ত শেষ হলেই পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে সরকারের তরফে।

শুধু এই ১৫ সরকারি আধিকারিক নয়, আরও দুই অফিসারের পেনশন আটকে দেওয়া হয়েছে বলে খবর। তাঁদের বিরুদ্ধেও দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছিল। সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, প্রশাসনকে দুর্নীতিমুক্ত রাখতে তৎপর প্রশাসন। মানুষের আস্থা বজায় রাখতে ও রাজ্যের উন্নয়নের জন্যই এই সিদ্ধান্ত বলে জানানো হয়েছে এই বিবৃতিতে।

এ ছাড়াও প্রশাসনে একাধিক রদবদলের সিদ্ধান্তও নিয়েছে ওড়িশা সরকার। সিনিয়র আইএএস অফিসার গগন কুমার ধলকে ওড়িশা বন দফতরের চেয়ারম্যান করে পাঠানো হয়েছে। আগে তিনি কৃষি বিভাগের কমিশনার ছিলেন। সুরেশ চন্দ্র মহাপাত্র, সুদর্শন পাল ঠাকুর, প্রদীপ্ত কুমার মহাপাত্র, মোনা শর্মা, সঞ্জীব চোপড়া, মনোজ কুমার মিশ্র ও রুদ্র নারায়ণ পালাই-এর মতো একাধিক আইএএস অফিসারেরও পদের বদল ঘটানো হয়েছে।

সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, এক পদে বেশিদিন থাকলেও সংশ্লিষ্ট সরকারি আধিকারিকের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ উঠছে। তাই কাউকে বেশিদিন এক পদে থাকতে না দেওয়ার জন্যই এই প্রশাসনিক রদবদল করা হয়েছে।

Comments are closed.