রবিবার, আগস্ট ২৫

জলপথে আক্রমণ চালাতে পারে পাকিস্তান, তৈরি ভারতের নৌসেনা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কাশ্মীরের উপর থেকে স্পেশ্যাল স্ট্যাটাস তুলে নেওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে রয়েছে পাকিস্তান। বদলা নিতে ফের জলপথে আক্রমণের পরিকল্পনা করছে তারা, এমনটাই খবর পেয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনী। আর তাই নৌবাহিনীকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, উপকূলে নিরাপত্তা বাড়ানোর। কোনওভাবেই যেন জলপথে পাক জঙ্গিরা ভারতের ঢুকতে না পারে, সে ব্যাপারে তৎপর ভারতীয় নৌসেনা।

সেনার এক উচ্চপদস্থ কর্তা জানিয়েছেন, “আমরা গোপন সূত্রে খবর পেয়েছি, জলপথে আক্রমণ করতে পারে পাকিস্তান। তাই পূর্ব ও পশ্চিম দুই উপকূলেই সূরক্ষা বাড়ানো হয়েছে। গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় র‍্যাডার বসিয়ে নজর রাখার হচ্ছে। সুরক্ষার ফাঁক গলে যাতে কেউ ঢুকতে না পারে, সে দিকটা দেখা হচ্ছে।” দুই উপকূলে মাছ ধরতে যাওয়া ট্রলারদের মধ্যেও ট্র্যাকিং ডিভাইস লাগানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে নৌসেনা।

ইন্ডিয়ান ইন্টেলিজেন্স জানিয়েছে, গত কয়েকদিনে পাক অধিকৃত কাশ্মীরে জৈশ প্রধান মাসুদ আজহারের ভাই রৌফ আজহারকে ঘোরাঘুরি করতে দেখা গিয়েছে। জানা গিয়েছে, পাক অধিকৃত কাশ্মীরের সীমান্তের নিকটবর্তী গ্রামগুলোতে জৈশ শিবিরে থাকা প্রশিক্ষিত জঙ্গিদের নিয়ে আসা হচ্ছে। তাদের দিয়ে হামলা চালানোর পরিকল্পনা করছে জৈশ। আর তাই শুধুমাত্র উপকূল নয়, কাশ্মীরের সীমান্তেও বাড়ানো হয়েছে নিরাপত্তা।

কয়েকদিন আগে পাক সেনাবাহিনীর প্রধান কামার জাভেদ বাজওয়ার মন্তব্যের পরে এই জল্পনা আরও বেড়েছে। কাশ্মীরের উপর থেকে স্পেশ্যাল স্ট্যাটাস তুলে নেওয়ার পর তিনি পাক সেনাকে নির্দেশ দেন সবরকম পরিস্থিতির জন্য তৈরি থাকতে। যে নির্দেশ আসবে তা পূরণ করার জন্য নিজেদের সবটা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে পাক সেনাকে।

২০০৮ সালে এই জলপথেই মুম্বইয়ে এসেছিল জঙ্গি আজমল কাসভ ও তার সঙ্গীরা। তারপর কী রক্তের খেলা হয়েছিল, তা গোটা দুনিয়া দেখেছিল। সে রকম কোনও পরিস্থিতি যাতে তৈরি না হয়, সেই চেষ্টায় করছে সেনা।

Comments are closed.