বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ১৭

যারা জামিনে মুক্ত, তারাই নিন্দা করছে চৌকিদারের, দাবি মোদীর

দ্য ওয়াল ব্যুরো : বিরোধীরা স্লোগান দিয়েছেন, চৌকিদার চোর হ্যায়। সেই প্রচারের জবাব দিতে গিয়ে শনিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বললেন, যারা জামিনে মুক্ত আছে, তারাই চৌকিদারের নামে নিন্দা করছে। এদিন উত্তর-পূর্ব ভারতে তিনটি জনসভা করেন মোদী। তার দু’টি করেন অসমে, একটি অরুণাচলে।

অরুণাচলের ওয়েস্ট সিয়াং জেলায় আলো নামে এক জায়গায় মোদী জনসভায় বলেন, যে নেতারা দিল্লিতে বসে বিপুল পরিমাণ কর ফাঁকি দিয়েছেন, চাষিদের জমি কেড়ে নিয়েছেন, সরকারি জমি ভাড়া দিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা উপার্জন করেছেন, প্রতিরক্ষা চুক্তি থেকে কমিশন নিয়েছেন, তাঁরা আমার নিন্দা করেন। তাঁরা কোনরকমে জেল থেকে রক্ষা পেয়েছেন। জামিন পেয়ে বাইরে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। এদিকে নিন্দা করছেন চৌকিদারের। কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী ও ইউপিএ-র চেয়ারপার্সন সনিয়া গান্ধীর বিরুদ্ধে কয়েকটি মামলা আছে। মোদী পরোক্ষে সেকথাই উল্লেখ করেছেন।

নির্বাচনের দিন ঘোষণার পরে এই প্রথম অরুণাচল প্রদেশে সভা করলেন মোদী। কংগ্রেসের সমালোচনা করে তিনি বলেন, তারা অরুণাচল প্রদেশ সহ পুরো উত্তর-পূর্ব ভারতকে অবহেলা করেছে।

অসমের গোহপুরে এক জনসভায় মোদী বলেন, চৌকিদারকে মানুষ বিশ্বাস করে। তাই বিরোধীরা ভীত। তাঁর দাবি, বিজেপি নেতৃত্বাধীন সরকার দুর্নীতিগ্রস্ত লোকজনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে। তাতেই ভয় পেয়ে গিয়েছে বিরোধীরা। অসমের মোরামে এক জনসভায় প্রধানমন্ত্রী বলেন, কংগ্রেসের জন্যই দেশ পশ্চাৎপদ অবস্থায় পড়ে আছে। বিদেশীরাও মনে করে, ভারত অত্যন্ত গরিব দেশ।

সরাসরি নেহরু-গান্ধী পরিবারকে আক্রমণ করে মোদী বলেন, কংগ্রেস কেবল একটি পরিবারের স্বার্থ দেখে। তাঁর কথায়, কংগ্রেসের শাসনে দেশের এমন হাল হয়েছে যে, সারা বিশ্ব ভারতকে দুর্বল দেশ হিসাবে জানে।

২০১৬ সালে পাকিস্তানে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক বা বালাকোটে বায়ুসেনার বোমাবর্ষণের প্রসঙ্গও তোলেন মোদী। তাঁর বক্তব্য, এই প্রথমবার ভারত সন্ত্রাসবাদীদের ঘরে ঢুকে তাদের মেরে এসেছে।

এরপর তিনি বলেন, সারা দেশ আজ আনন্দিত। শুধু দু’পক্ষ খুশি নয়। কংগ্রেস আর সন্ত্রাসবাদী। সারা বিশ্ব ভারতের পিছনে দাঁড়িয়েছে। কিন্তু কংগ্রেসের চোখে ঘুম নেই।

সম্প্রতি মহাকাশে কৃত্রিম উপগ্রহ ধ্বংসের কথা তুলে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ওই খবর শুনে কংগ্রেসের চোখে জল এসে গিয়েছিল।

Comments are closed.