শনিবার, আগস্ট ২৪

ভগবান রামের ছেলে কুশের বংশধর আমরা, মন্তব্য বিজেপি সাংসদের

দ্য ওয়াল ব্যুরো : শুক্রবার অযোধ্যা মামলার শুনানি চলাকালীন বিচারপতিদের ডিভিশন বেঞ্চ প্রশ্ন করেছিলেন, ভগবান রামের কোনও বংশধর কি অযোধ্যায় এখনও আছেন? এই প্রশ্নের উত্তর দিলেন রাজস্থানের রাজসমন্দের বিজেপি সাংসদ দিয়া কুমারী। বললেন, তাঁরাই নাকি ভগবান রামের ছেলে কুশের বংশধর। এর প্রমাণও নাকি তাঁর কাছে আছে।

রবিবার বিজেপি সাংসদ বলেন, “সুপ্রিম কোর্ট বলেছে, কোথায় ভগবান রামের বংশধর? ভগবান রামের বংশধররা গোটা পৃথিবী জুড়ে আছেন। আমরাই তো ভগবান রামের ছেলে কুশের বংশধর।” রাজস্থানের রাজ পরিবারের মেয়ে দিয়া জানান, তাঁদের পরিবারে বেশ কিছু পাণ্ডুলিপি, বই ও কাগজপত্র রয়েছে, যার থেকে প্রমাণিত হয় তাঁরা কুশের বংশধর।

দরকার পড়লে সেই সব কাগজপত্র তিনি আদালতের সামনে পেশ করতে পারেন বলেও জানিয়েছেন দিয়া। অবশ্য তার বদলে অযোধ্যায় রাম জন্মভূমির উপর কোনও দাবি তাঁদের নেই। বিজেপি সাংসদের বক্তব্য, তাঁরা চান, দ্রুত এই অযোধ্যা মামলার শুনানি হোক।

শুক্রবার অযোধ্যা মামলার এক পক্ষ রাম লাল্লা বিরাজমান-এর পক্ষ থেকে আইনজীবী কে পরাশরণকে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিদের ডিভিশন বেঞ্চ প্রশ্ন করেন, রঘুবংশের কোনও লোক কি এখনও অযোধ্যায় থাকেন? এই প্রশ্নের উত্তরে পরাশরণ বলেন, তাঁর কাছে এই মুহূর্তে কোনও তথ্য নেই। খুঁজে দেখতে হবে। তারপরেই নিজেদের রামের ছেলে কুশের বংশধর বলে দাবি করলেন বিজেপি সাংসদ।

১৯৯২ সালে বেশ কিছু হিন্দু সংগঠন অযোধ্যার বাবরি মসজিদ ধ্বংস করেন। তাদের দাবি ছিল, সেখানে রাম জন্মভূমি ছিল। তাই রামমন্দির তৈরি করতে হবে। তারপর থেকেই এই মামলা সুপ্রিম কোর্টের অধীন। ওই ভূমির তিন প্রধান দাবিদার হলো সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড, রাম লাল্লা বিরাজমান ও নির্মোহী আখড়া। মাঝে আদালত চেষ্টা করেছিল, মধ্যস্থতাকারীদের সাহায্যে এই মামলার নিষ্পত্তি করার। কিন্তু কোনও সিদ্ধান্ত নিতে পারেননি মধ্যস্থতাকারীরা। অবশেষে দেশের শীর্ষ আদালত জানিয়েছে, প্রত্যেকদিন শুনানি হবে এই মামলার।

Comments are closed.