বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ১৭

‘ইয়ঙ্গেস্ট হাইকার’ আইজ়েল মাসুদি, তার বয়স মাত্র তিন!

দ্য ওয়াল ব্যুরো: অনেক শিশুই যে সময় টলমল পায়ে হাঁটতে শেখে, হামা দেয়, বা মা বাবার কাছে আব্দার করে কোলে নিয়ে চলতে, সেই বয়সেই ‘ইয়ঙ্গেস্ট হাইকার’-এর শিরোপা পেল আইজ়েল মাসুদি। জম্মু-কাশ্মীরের বাণিজ্যিক শহর সোপরের বাসিন্দা আইজ়েল। তিন বছরের ছোট্ট আইজ়েল তার বাবার সাথে পাহাড় চড়ে ফেলেছে ইতিমধ্যেই। বৃহস্পতিবারই আইজ়েলকে সবচেয়ে ছোট্ট হাইকারের শিরোপা দিয়েছে সাউথ এশিয়ান ভলান্টারি অ্যাসোসিয়েশন অফ এমভায়রনমেন্টালিস্ট (SAVAE)। এই কাশ্মীরি সংগঠনটি মূলত দক্ষিণ এশিয়ার পরিবেশ সচেতনতার বিষয়ে নজর দেয়, কাজ করে।

savae –এর চেয়ারপার্সন বিলাল আহমেদ বলছেন, সপ্তাহব্যাপী একটি ইকো-ক্যাম্পেইন করা হয়েছিল, যা ৪ঠা জুলাই শেষ হয়েছে। তাতেই আইজ়েল তার বাবার সাথে টলমল পায়ে হাইক করেছে বেশ কিছুটা। আইজ়েলের বাবাও প্রায়শই পাহাড় চড়েন। আয়োজকরা চেয়েছিলেন, এই শিবিরটা থেকে ছোট ছোট পরিবেশদূতদের খুঁজে নিয়ে তাদের উৎসাহিত করতে। বিলাল আহমেদ বলেন, এই নতুন এনার্জিদের চিহ্নিত করে কেন্দ্রীয় পর্যায়ে তাঁদের প্রজেক্টের জন্য ব্যবহার করাটাই তাঁদের লক্ষ্য। এই সংগঠনটি এক সপ্তাহের একটি ট্রেনিং ও কমিউনিটি সচেতনতা সেশনের আয়োজন করেছিল। যা প্রাথমিকভাবে গন্দরবাল জেলার কাংগান পাহাড়ী অঞ্চলের তরুণ ট্রেকারদের উত্সাহে পরিচালিত হয়েছিল।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অথর পারভেজ, পরিবেশ বিষয়ক সাংবাদিকতাই তাঁর পেশা। তিনি বলেন, “আমরা আমাদের অঞ্চলের জলাভূমি, হ্রদ এবং হিমবাহের মত জলসম্পদগুলিকে অবহেলা করি, যা পর্যটকদের আকৃষ্ট করে। এটি বেশ হতাশার বিষয় আজকাল, যে হিমবাহগুলো দিন দিন গলে যাচ্ছে, অন্তত বিজ্ঞান তেমনই বলছে। এটা আমাদের যৌথভাবে অর্থনৈতিক ও পরিবেশগত স্বার্থকে চাপের মুখে ফেলে দিতে বাধ্য। “

Comments are closed.