বুধবার, মার্চ ২০

ভাগ্নের হত্যার বদলা নিতেই পুলওয়ামার ব্লুপ্রিন্ট ছকেছিল মাসুদ আজহার: ভারতীয় সেনাবাহিনী

দ্য ওয়াল ব্যুরো: মাসুদ আজহারের ভাগ্নের মৃত্যুর বদলা নিতেই পুলওয়ামায় সিআরপিএফ-এর কনভয়ে হামলা চালিয়েছিল জইশ জঙ্গিরা। পুলওয়ামা হামলার ৭২ ঘণ্টার মধ্যেই তদন্তকারী অফিসারদের হাতে উঠে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য। তাঁরা জানিয়েছেন, এই হামলার নেপথ্যে ছিল জইশ কম্যান্ডার আবদুল রশিদ গাজি। অনুমান, সম্ভবত ত্রালে আত্মগোপন করে রয়েছে এই রশিদ।

সেনাবাহিনীর গুলিতেই খতম হয়েছিল জইশ-ই-মহম্মদ প্রধান মাসুদ আজহারের ভাগ্নে। আর সেই হত্যার বদলা নিতেই পুলওয়ামায় হামলা চালিয়েছেন জইশ জঙ্গিরা। জানা গিয়েছে, এর আগে তিনবার সোপিয়ানেও হামলা চালিয়েছিল জইশ-ই-মহম্মদ। কিন্তু চলতি বছরের জানুয়ারি মাসেই প্ল্যান বদলে পুলওয়ামায় হামলার ছক কষে খোদ মাসুদ আজহার। সেনাবাহিনী জানিয়েছে, জঙ্গিদের প্রশিক্ষণের পর মাসুদ আজহার বার্তা দিয়েছিলেন, “ভারত যেন চোখের জল ফেলে।”

সেনা সূত্রে খবর, বৃহস্পতিবার হামলার আগে একটি লাল রংয়ের গাড়ি নজরে এসেছিল এক সিআরপিএফ জওয়ানের। সঙ্গে সঙ্গেই উপরে মহলে খবর পাঠানো হয়। গাড়িটিকে দাঁড় করানোর চেষ্টাও করেন জওয়ানরা। কিন্তু তার আগেই কনভয়ের পিছন দিক থেকে এসে সিআরপিএফ-এর একটি ট্রাকে ধাক্কা মারে বিস্ফোরক বোঝাই ওই গাড়ি। মুহূর্তেই দু’টুকরো হয়ে যায় ট্রাক। ছিন্নভিন্ন হয়ে ছিটকে পড়ে জওয়ানদের দেহ।

হামলার দিন প্রায় ৩৫০ কেজি বিস্ফোরক বোঝাই স্করপিও গাড়ি নিয়ে সিআরপিএফ-এর ট্রাকে ধাক্কা মারে আত্মঘাতী জইশ জঙ্গি আদিল দার। ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছে, ওই বিস্ফোরকের পুরোটাই ছিল হেভি এক্সপ্লোসিভ আরডিএক্স-এ ঠাসা। আর সেই জন্যেই বিস্ফোরণের তীব্রতা ছিল মারাত্মক। প্রায় ৮০ মিটার দূরে ছিটকে গিয়ে পড়েছিল নিহত জওয়ানদের দেহ। সেনার ট্রাকে ধাক্কা মারার পর জওয়ানদের ঘিরে ধরে গুলিবৃষ্টি শুরু করে জইশ জঙ্গিরা। এ দিনের ভয়ানক বিস্ফোরণে দু’টুকরো হয়ে যায় সিআরপিএফ-এর ট্রাকটি। ঘটনাস্থলে ১০০ মিটার জুড়ে কেবলই নজরে এসেছে জওয়ানদের ছিন্ন-ভিন্ন দেহ।

বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে তিনটে নাগাদ সিআরপিএফ-এর কনভয়ে হামলা চালায় জইশ জঙ্গি আদিল আহমেদ দার ওরফে ওয়াকাস। প্রাথমিক ভাবে জানা যায় ফিদায়ঁ জঙ্গি হানায় নিহত হয়েছেন ৪০জন জওয়ান। তবে পরে জানা গিয়েছে আরও জওয়ানের মৃত্যু হয়েছে এই বিস্ফোরণে। নিহতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪৯। গুরুতর জখম হয়েছেন আরও অনেকে। বাদামিবাগের আর্মির ৯২ বেস হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন আহত জওয়ানরা।

Shares

Comments are closed.