বুধবার, নভেম্বর ১৩

ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল উত্তর-পূর্ব ভারত, জোড়া কম্পন নেপালেও, রেশ ছড়াল চিন, তিব্বতে

  • 98
  •  
  •  
    98
    Shares

দ্য ওয়াল ব্যুরো: মাঝ রাতে শক্তিশালী ভূমিকম্পে নড়ে উঠল উত্তর-পূর্ব ভারত। মঙ্গলবার রাত পৌনে ২টো নাগাদ ভয়াবহ কম্পন অনুভূত হল অরুণাচলপ্রদেশ ও অসমে। প্রায় একই সময় জোড়া কম্পনে কেঁপে ওঠে প্রতিবেশী দেশ নেপাল। কম্পনের রেশ ছড়ায় চিন, তিব্বত ও মায়ানমারেও। হতাহতের এখনও কোনও খবর নেই।

ভারতের আবহাওয়া দফতর প্রথমে কম্পনের তীব্রতা জানায় রিখটার স্কেলে ৫.৮। তবে পরে মার্কিন জিওলজিক্যাল সার্ভে সূত্রে জানা যায়, রিখটার স্কেলে এই কম্পনের তীব্রতা ধরা পড়েছে ৬.১। কম্পনের কেন্দ্রস্থল আলং থেকে ৪০ কিলোমিটার (২৫ মাইল) দক্ষিণপূর্বে এবং অরুণাচলের রাজধানী ইটানগর থেকে ১৮০ কিলোমিটার দক্ষিণপশ্চিমে।

সবচেয়ে বেশি কম্পন বোঝা গেছে অরুণাচলের পশ্চিমে সিয়াংয়ে, যদিও সেখানে ক্ষয়ক্ষতির কোনও খবর এখনও জানা যায়নি। অসমের ব্রহ্মপুত্র নদীর সন্নিহিত এলাকায় সবচেয়ে বেশি কম্পন অনুভূত হয়েছে। ওই এলাকা চিন সীমান্তের খুব কাছাকাছি।

মার্কিন জিওলজিক্যাল সার্ভের সূত্র অনুযায়ী, ভোর চারটে নাগাদ ভূমিকম্পে কেঁপে ওঠে চিন। রিখটার স্কেলে যার তীব্রতা ছিল ৬.৩। চিনের সরকারি সংবাদ সংস্থা সূত্রে খবর, এ দিন কম্পন অনুভূত হয়েছে ভারত সংলগ্ন তিব্বতের বেশ কিছু এলাকাতেও।

উত্তরপূর্বে কম্পনের রেশ কাটতে না কাটতেই ভোর সোয়া ৬টা নাগাদ কেঁপে ওঠে নেপালের কাঠমাণ্ডু ও তার পার্শ্ববর্তী এলাকা। কম্পনের মাত্রা ছিল রিখটার স্কেলে ৪.৮। এরপর সাড়ে ৬টা নাগাদ ফের একবার কম্পন অনুভূত হয় নেপালে। যার তীব্রতা ছিল ৫.৩। নেপালের ন্যাশনাল এমারজেন্সি অপারেশন সেন্টার জানিয়েছে, ধাদিং জেলার নৌবিসে সবচেয়ে বেশি কম্পন অনুভূত হয়েছে।

Comments are closed.