রবিবার, মার্চ ২৪

সিধুকে সরালে সমস্যার সমাধান মিলবে না, পুলওয়ামা কাণ্ডে বিস্ফোরক মন্তব্য কপিলের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: “আমার শো থেকে সিধুকে সরিয়ে দিলেই সমস্যার সমাধান হবে না। আমাদের উচিত স্থায়ী সমাধান খোঁজা।” ক’দিন আগেই কপিল শর্মার কমেডি শো থেকে বাদ পড়েছেন শোয়ের বিশেষ অতিথি নভজ্যোৎ সিং সিধু। এ বার সিধুর সমর্থনেই বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন এই জনপ্রিয় শোয়ের সঞ্চালক কপিল শর্মা।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি দক্ষিণ কাশ্মীরের পুলওয়ামা জেলার অবন্তীপোরার কাছে লেথপোরায় সিআরপিএফ-এর কনভয়ে হামলা চালায় জঙ্গিরা। এই ফিদায়েঁ হামলায় শহিদ হন ৪০জন সিআরপিএফ জওয়ান। ভয়াবহ আত্মঘাতী হানার দায় স্বীকার করে নেয় পাকিস্তানের মদতপুষ্ট জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মহম্মদ।

এই ঘটনার পরে দেশ যখন ক্ষোভে ফুঁসছে, সেই সময় জঙ্গিহানার বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন নভজ্যোৎ সিং সিধু। তিনি বলেন, “পুলওয়ামায় যে হামলার ঘটনা হয়েছে, আমি তার তীব্র নিন্দে করছি। সন্ত্রাসবাদী কাজ সবসময়েরই খারাপ। যারা এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত, তাদের চরম সাজা পাওয়া উচিত।” তবে এই কথার পরেই বিতর্কিত মন্তব্য করেন সিধু। বলেন, “কিছু সংখ্যক মানুষের জন্য একটা গোটা দেশকে দোষ দেওয়া কি উচিত? এবং বিশেষ একজনকে দোষ দেওয়াও কি উচিত?” বিশেষ একজন বলতে সিধু আলাদা করে কোনও নাম বলেননি। তবে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, সিধুর বিশেষ বন্ধু হলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। এ কথা নিজের মুখেই অনেকবার স্বীকার করেছেন এই প্রাক্তন ক্রিকেটার।

সিধুর এই মন্তব্যের পরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় শুরু হয় সমালোচনা। কমেডি শো ‘দ্য কপিল শর্মা শো’ ব্যান করে দেওয়ার দাবিও উঠেছিল। কারণ এই শো’য়ে স্পেশ্যাল গেস্ট হিসেবে উপস্থিত থাকেন প্রাক্তন ক্রিকেটার নভজ্যোৎ সিং সিধু। অবশেষে চ্যানেল কর্তৃপক্ষ সিধুকে শো থেকে বের করে দেন। কর্তৃপক্ষের কথায়, প্রায় এক বছর বন্ধ থাকার পর ফের শুরু হয়েছে ‘দ্য কপিল শর্মা শো’। তাই শোয়ের নির্মাতা চান না, এই অনুষ্ঠান নিয়ে ফের বিতর্ক হোক। আর সে কারণেই এই শো থেকে সিধুকে বের করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তাঁরা। সিধুর বদলে কমেডি কুইন অর্চনা পূরণ সিং ওই শোয়ের নতুন স্পেশ্যাল গেস্ট হচ্ছেন।

কিন্তু চ্যানেল কর্তৃপক্ষ কপিল শর্মার শো থেকে সিধুকে বাদ দিলেও সিধুর পাশে দাঁড়িয়েছিলেন শোয়ের সঞ্চালক কপিল। সিধুর সমর্থনে তিনি বলেন, “এটা খুবই ছোট ঘটনা। এ ভাবে সিধুকে ব্যান করে কোনও সমস্যার সমাধান হবে না। আমাদের স্থায়ী সমাধান খোঁজা উচিত।” কমেডি কিং কপিলের এ হেন মন্তব্যের পর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় চলছে সমালোচনার ঝড়। #boycottkapilsharma– সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ক্যাপশন দিয়ে প্রতিবাদ জানাতে শুরু করেছেন নেটিজেনদের একটা বড় অংশ। কেউ বলেছেন, একটা ছোট বাচ্চাও জানে পুলওয়ামা হামলার জন্য কে দায়ী। সেক্ষেত্রে কপিলের এমন মন্তব্য করা মোটেও ঠিক নয়। কেউ আবার বলেছেন, সিধুকে সমর্থন করেই কপিল বুঝিয়ে দিলেন তিনি আদতে কেমন মানুষ। অনেকে আবার সরাসরি শোয়ের প্রযোজক সলমন খানকেই অনুরোধ করেছেন কপিলকে যেন শো থেকে বের করে দেওয়া হয়। অনেকের মতে কপিলের শো মোটেও আহামরি কিছু নয়। অতএব এখান থেকে কপিলকে বাদ দিয়ে দেওয়া উচিত।

তবে সোশ্যাল মিডিয়ায় হাজার সমালোচনা হলেও এ বিষয়ে মুখে কুলুপ এঁটেছেন কপিল।

Shares

Comments are closed.