বুধবার, জুন ১৯

কাজ শেষ! ভোট মিটতেই বন্ধ হয়ে গেল ‘নমো টিভি’

দ্য ওয়াল ব্যুরো : ৩১ মার্চ দেখানো শুরু হয়েছিল। বন্ধ হয়ে গেল ১৭ মে। দু’মাসেরও কম সময় চলা নমো টিভিকে নিয়ে বিতর্ক কম হয়নি। বারবার বিরোধীরা অভিযোগ করেছে, মোদীর প্রচারের জন্যই চালু করে হয়েছে এই চ্যানেল। উল্টোদিকে বিজেপি দাবি করেছে, সরকারের বিভিন্ন প্রকল্প মানুষের সামনে তুলে ধরার জন্যই শুরু হয়েছে এই চ্যানেল। কিন্তু ভোট শেষ হতেই নমো টিভি বন্ধ হয়ে যাওয়া নিয়ে ফের বিতর্ক দেখা দিল। তবে কি সত্যি মোদীর প্রচারের জন্যই চালু হয়েছিল এই চ্যানেল!

উনিশের লোকসভা নির্বাচন শেষ হয়েছে ১৯ মে। তার দু’দিন আগে অর্থাৎ ১৭ মে বন্ধ হয়ে গিয়েছিল প্রচার। আর সে দিনই বন্ধ করে দেওয়া হয় নমো টিভি। এই চ্যানেল বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর এক বিজেপি নেতা সংবাদসংস্থা পিটিআইকে জানিয়েছেন, “যেহেতু বিজেপির প্রচারের জন্য নমো টিভি চালু করা হয়েছিল, তাই প্রচার শেষ হয়ে যাওয়ায় এর আর কোনও প্রয়োজন থাকল না। তাই ১৭ মে প্রচার শেষ হতেই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে এই চ্যানেল।”

ভোট শেষ হতেই রাহুল গান্ধী টুইট করে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন, ইভিএম মেশিনে কারচুপি করতে পারে বিজেপি। তার সঙ্গে নমো টিভিকেও দুষেছেন তিনি। তাঁর অভিযোগ, নমো টিভি নিয়ে বারবার নির্বাচন কমিশনের কাছে অভিযোগ জানানোর পরেও কোনও ব্যবস্থা নেয়নি কমিশন। নমো টিভি চালু হওয়ার পর থেকেই অভিযোগ করে আসছেন বিরোধীরা। তাঁদের অভিযোগ, এই চ্যানেল খুলে আদর্শ আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছে বিজেপি। তাঁরা আরও অভিযোগ করেছিলেন, এই চ্যানেলের মাধ্যমে সরাসরি সাধারণ মানুষের কাছে প্রচার করছে বিজেপি। এতে ভোটাররা প্রভাবিত হচ্ছেন। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও বিভিন্ন নির্বাচনী সভা থেকেই এই নমো টিভি নিয়ে বিজেপিকে দুষতেন। টাটা স্কাই, ডিশ টিভি, ভিডিওকনের মতো প্রোভাইডাররা বিনামূল্যে নমো টিভি দেখাত।

কিন্তু তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রক থেকে বারবার বলা হয়েছে, এই চ্যানেলে সরকারের বিভিন্ন প্রকল্প দেখানো হয়। তাই এতে কোনও আচরণবিধি লঙ্ঘন হয় না। তারপরেও অবশ্য বিরোধীদের অভিযোগের ভিত্তিতে ব্যবস্থা নেয় কমিশন। ১২ এপ্রিল কমিশন জানিয়ে দেয়, মিডিয়া সারটিফিকেশন ও মনিটরিং কমিটির অনুমতির পরেই কোনও প্রোগ্রাম এই চ্যানেলে দেখানো যাবে। দিল্লিতে ভোটের দিন দিল্লির নির্বাচনী আধিকারিক এও জানিয়ে দেন, ভোটের দিন কোনও কিছু দেখানো যাবে না এই চ্যানেলে।

কিন্তু ভোট শেষ হতেই এই চ্যানেল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় উঠছে প্রশ্ন। তাহলে কি সত্যি রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে চালু করা হয়েছিল নমো টিভি। কাজ মিটে যেতেই তাই বন্ধ করে দেওয়া হলো।

আরও পড়ুন

গান্ধী পরিবারকে নিয়ে কংগ্রেস নিজেই প্যাঁচে, এক্সিট পোলের পরেই দাবি জেটলির

Comments are closed.