নিয়ন্ত্রণ রেখার ওপারে একের পর এক পাক জঙ্গি ঘাঁটি উড়িয়ে দিল ভারত

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

দ্য ওয়াল ব্যুরো: পুলওয়ামার জবাব দিতে শুরু করে দিল ভারত। নিয়ন্ত্রণ রেখার ওপারে পাকিস্তানের ভূখন্ডে থাকা একের পর এক জঙ্গি ঘাঁটি উড়িয়ে দিয়েছে ভারতীয় বায়ু সেনা। সেনা সূত্রে খবর, মঙ্গলবার ভোর সাড়ে তিনটে নাগাদ এই স্ট্রাইক শুরু করে। এবং ১০০ শতাংশ সফল অপারেশন হয়েছে বলে খবর।

জানা গিয়েছে বায়ুসেনার ১২টি মিরাজ-২০০০ যুদ্ধবিমান সীমানা পেরিয়ে পাকিস্তানে ঢুকে কার্পেট বম্বিং শুরু করে। প্রায় এক হাজার কিলো বোমা বর্ষণ করা হয় জঙ্গি ক্যাম্পগুলির উপর। সংবাদ সংস্থা এএনআই জানিয়েছে, যে উদ্দেশ্য নিয়ে স্ট্রাইক করেছিল ভারত তা পুরোপুরি সফল।

বালাকোট থেকে পাক অধ্যুষিত কাশ্মীরের প্রায় ৮০ কিলোমিটার ভিতরে ঢুকে পরে ভারতীয় বায়ুসেনার ১২টি যুদ্ধবিমান। গুঁড়িয়ে দেওয়া একের পর এক জইশ ই মহম্মদের লঞ্চপ্যাড। মাসুদ আজহারের সংগঠনের কন্ট্রোল রুম আলফা-৩ ও ধ্বংস করে দেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি বিকেল সওয়া তিনটে নাগাদ কাশ্মীরের পুলওয়ামায় ভয়াবহ জঙ্গি হামলা চালিয়েছিল পাক মদতপুষ্ট জইশ ই মহম্মদ। প্রাণ গিয়েছিল ৪০ জন সিআরপিএফ জওয়ানের। সেই শোকের মাঝেই নয়া দিল্লি জানিয়েছিল বাবলু সাঁতরা, সুদীপ বিশ্বাসদের হত্যার বদলা হবেই। এবং তা খুব শিগগির। হলোও তাই। ১২ দিনের মাথায় পাকিস্তানকে উপযুক্ত জবাব দিল ভারত।

২০১৯-এর ২৬ ফেব্রুয়ারির এই স্ট্রাইক মনে করাচ্ছে ২০১৬-র ২৯ সেপ্টেম্বরকে। উরিতে জঙ্গি হানার বদলা নিতে ওই দিন পাকিস্তানে ঢুকে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালিয়েছিল ভারতীয় নিরাপত্তাবাহিনী। অনেকেই মঙ্গলবার ভোরের অপারেশনকে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক পার্ট টু বলতে শুরু করেছেন।

প্রসঙ্গত, পুলওয়ামা কাণ্ডের পর ফুঁসছিল ভারত। পৃথিবীর একাধিক দেশ সমালোচনা করেছে পাকিস্তানের। রাষ্ট্রসঙ্ঘেও কোণঠাসা হয়ে পড়েছিল ইমরান খানের পাকিস্তান। ঘটনার কয়েক দিন পর এক রকম চাপে পড়েই সাংবাদিক সম্মেলন করেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু সেখানে নিজের দেশের সাফাই গেয়ে ইমরান বলেন, নয়াদিল্লি যদি প্রমাণ দিতে পারে তাহলে অবশ্যই পাক প্রশাসন উপযুক্ত ব্যবস্থা নেবে। ইমরানের ওই কথা শেষ হওয়ার পরপরই নর্থ ব্লক বলে দেয়, জইশ-এর মাথা মাসুদ আজহার পাকিস্তান অধ্যুষিত পাঞ্জাবের বাহাওয়ালপুরে বসে রয়েছে। যান গিয়ে ধরুন। তারপর পাকিস্তান এ-ও জানায় বাহাওয়ালপুরের জইশ হেড কোয়ার্টারসের দখল তাদের সেনাবাহিনী নিয়ে ফেলেছে। কিন্তু তার চব্বিশ ঘণ্টার মধ্যে ডিগবাজি দেয় পাকিস্তান। জানায়, ওখানে মাদ্রাসা রয়েছে। পড়াশোনা হয়। ওখানকার সঙ্গে জঙ্গি সংগঠনের কোনও যোগ নেই।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ১৫ ফেব্রুয়ারি সকালেই ডেকে দিয়েছিলেন কেন্দ্রীয় ক্যাবিনেটের নিরাপত্তা বিষয়ক কমিটির বৈঠক। সেই বৈঠকের পর একটি অনুষ্ঠান থেকে জানিয়েছিলেন, তিনি পারমিশন দিয়ে দিয়েছেন প্রত্যাঘাতের। কিন্তু কবে, কখন, কীভাবে প্রত্যাঘাত তা ঠিক করবে সেনাবাহিনী। এ দিন সেই প্রত্যাঘাত হানল ভারত। সকাল সাড়ে নটা নাগাদ টুইট করে ভারতীয় বায়ুসেনার পাইলটদের কুর্নিস জানান কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

You might also like

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More