বৃহস্পতিবার, মার্চ ২১

‘ভারতের তরফে আগ্রাসন হলে জবাব দিতে তৈরি থাকুন’, পাক সেনাকে বার্তা ইমরানের

দ্য ওয়াল ব্যুরো : পুলওয়ামায় সিআরপিএফ কনভয়ে হামলার পর থেকে বিশ্বজুড়ে কার্যত একঘরে পাকিস্তান। কূটনৈতিক ও অর্থনৈতিকভাবে একের পর এক চাপ আসছে ইমরান খানের সরকারের উপর। উল্টোদিকে পাকিস্তান প্রথম থেকেই বলে আসছে, এই জঙ্গি হামলার সঙ্গে তারা কোনও ভাবেই যুক্ত নয়। তাদের দাবি, ভারতের মধ্যে থেকেই এই জঙ্গি হামলার পরিকল্পনা ও বাস্তবায়ন হয়েছে। তবে ভারতের তরফে কোনও আগ্রাসন হলে যে পাকিস্তান চুপ করে বসে থাকবে না, তার বার্তা দিয়েছেন ইমরান। ইমরানের বক্তব্য, ভারতের তরফে কোনও আগ্রাসন হলে তার যোগ্য জবাব দিতে তৈরি পাক সেনা।

বৃহস্পতিবার ইমরানের নেতৃত্বে জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠক হয়৷ সেখানে উপস্থিত ছিলেন দেশের সামরিক বিভাগের শীর্ষ আধিকারিকরা। সেই বৈঠকেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, দেশের জনগনকে রক্ষা করতে সক্ষম পাক সরকার। পুলওয়ামায় সিআরপিএফ কনভয়ে জইশ ই মহম্মদের আত্মঘাতী হামলার পরিপ্রেক্ষিতে বর্তমানে পাকিস্তানের কী পরিস্থিতি, তা আলোচনা করার জন্যই এ দিনের বৈঠক ডাকা হয়েছিল।

রেডিও পাকিস্তানের বক্তব্য অনুযায়ী, বৈঠকের পর সরকারের তরফে একটি বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়েছে, “এটা নয়া পাকিস্তান। এই পাকিস্তান দেশের মানুষকে রক্ষা করতে জানে। বাইরের শত্রু দেশের জনগনের কোনও ক্ষতি করতে পারবে না।” বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘পুলওয়ামার ঘটনা ভারতের অভ্যন্তরীন জঙ্গি গোষ্ঠীর পরিকল্পনা ও বাস্তবায়ন। এই ঘটনার সঙ্গে পাকিস্তান কোনও ভাবেই যুক্ত নয়।’

এই বিবৃতিতে আরও জানানো হয়েছে, প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান পাক সেনাকে পূর্ণ স্বাধীনতা দিয়েছেন, যাতে ভারতের তরফে যদি কোনও আগ্রসন হয়, তাহলে তার জবাব দেওয়ার জন্য যেন পাক সেনা তৈরি থাকে। এর আগে একটি ভিডিও বার্তায় ইমরান খান দাবি করেছিলেন, কাশ্মীরের জঙ্গি হামলার সঙ্গে পাকিস্তান কোনও ভাবেই যুক্ত নয়। তবে ইমরানের এই মন্তব্যকে খারিজ করে দিয়েছে ভারত। ভারতের তরফে দাবি করা হয়েছে, পাকিস্তান জঙ্গিদের আঁতুরঘরে পরিণত হয়েছে।

জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকের আগে অবশ্য পাক সেনা প্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়ার সঙ্গে একান্তে বৈঠক করেছেন ইমরান। সেই বৈঠকের দেশের সুরক্ষা ব্যবস্থা নিয়েই দু’জনের কথা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকে জেনারেল বাজওয়া ছাড়াও ইন্টেলিজেন্স প্রধান, নিরাপত্তা আধিকারিকরাও উপস্থিত ছিলেন।

এ দিকে এই বৈঠকের পরেই ফের সীমান্তে কিছুটা অস্থিরতার সৃষ্টি হয়েছে। সেনা সূত্রে খবর, বৃহস্পতিবার সন্ধেবেলা সোপিয়ানের নাগিশরণ ক্যাম্পের কাছে কিছু মুভমেন্ট লক্ষ্য করা গেছে। এই মুভমেন্টের জবাবও দিয়েছে ভারতীয় সেনা। এমনকী, পাকিস্তানের সিয়ালকোটে সীমান্তের কাছে লোকালয়ে পাক বায়ুসেনার দুটি বিমানকে উড়তে দেখা গিয়েছে। ভারতীয় সেনার তরফেও এই বিমান লক্ষ্য করা হয়েছে।

আরও পড়ুন

লস্কর জঙ্গি নেতা হাফিজ সঈদের সংগঠন জামাত উদ দাওয়াকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করল পাকিস্তান

Shares

Comments are closed.