রক্ষকই ভক্ষক! দুই মহিলাকে মারধর ও শ্লীলতাহানির জোড়া কেসে গ্রেফতার হরিয়ানা পুলিশের আইজিপি, দেখুন ভিডিও

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আইন রক্ষা করার দায়িত্ব তাঁর উপর। আর তিনিই কিনা আইন ভাঙছেন। কখনও শূন্যে গুলি ছুড়ছেন, কখনও পথ দুর্ঘটনায় নাম জড়াচ্ছে। তবে এবার যা হয়েছে তা সবের ঊর্ধ্বে। দু’জন মহিলাকে মারধর ও শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠেছে হরিয়ানার ইনস্পেক্টর জেনারেল অফ পুলিশ (হোমগার্ড) হেমন্ত কালসোনের বিরুদ্ধে। শুধু অভিযোগই নয়, সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে তার ভিডিও। তারপরেই দুটি আলাদা অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেফতার করা হয়েছে এই পুলিশকর্তাকে।

তা ঠিক কী করেছেন হেমন্ত কালসোন?

প্রথমে অভিযোগ করেছেন হরিয়ানার পিঞ্জোর এলাকার এক মহিলা। তাঁর অভিযোগ, তাঁর বাড়িতে জোর করে ঢুকে তাঁর মেয়েকে মারধর শুরু করেন হেমন্ত। তিনি তখন স্নান করছিলেন। মেয়ের চিৎকার শুনে তিনি বেরিয়ে এসে ওই দৃশ্য দেখেন। তারপর তিনি কোনও রকমের তাঁর মেয়েকে উদ্ধার করেন। থানায় হেমন্তের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩২৩ ও ৪৫২ ধারায় অভিযোগ দায়ের করেছেন তিনি।

দ্বিতীয় অভিযোগও এসেছে একই এলাকা থেকে। এবার অভিযোগ করেছেন এক ব্যক্তি। তাঁর অভিযোগ, মদ্যপ অবস্থায় তাঁর বাড়িতে জোর করে ঢোকেন হেমন্ত কালসোন। তারপর তাঁর স্ত্রীর শ্লীলতাহানির চেষ্টা করেন। এই দৃশ্য দেখে তিনি চেষ্টা করেন তাঁর স্ত্রীকে বাঁচাতে। সেই সময় নাকি তাঁকেও মারধর করেন ও ভয় দেখান পুলিশের আইজিপি। তাঁর বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩২৩, ৪৫২, ৫০৯ ও ৫১০ ধারায় অভিযোগ দায়ের করেন ওই ব্যক্তি।

একটি ভিডিও প্রকাশ হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। তাতে দেখা যাচ্ছে, অপ্রকৃতস্থ অবস্থায় আইজিপি হেমন্ত কালসোনের সঙ্গে রীতিমতো ধ্বস্তাধস্তি হচ্ছে এক মহিলার। তাঁর উপর জোর খাটানোর চেষ্টা করছেন হেমন্ত। ওই মহিলা তাঁকে বাড়ির বাইরে বের করার চেষ্টা করছেন। অবশেষে তাঁকে কোনও রকমে দরজা থেকে বের করে দিয়ে দরজা বন্ধ করে দেন মহিলা। তাঁর পিছনে লাঠি হাতে একজন অল্প বয়সী মেয়েকেও দেখা যায়। পিছনে এক পুরুষের কণ্ঠও শোনা যায়। এই ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

পঞ্চকুলা পুলিশের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, “হরিয়ানার আইজিপি (হোমগার্ড) হেমন্ত কালসোনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পঞ্চকুলার পিঞ্জোরে গতকাল রাতে জোর করে দুই মহিলার বাড়িতে ঢুকে তাঁদের সঙ্গে অভদ্র ব্যবহার করার জন্য গ্রেফতার করা হয়েছে তাঁকে।”

অবশ্য এই প্রথম নয়, এর আগেও অনেকবার বিতর্কে জড়িয়েছেন হেমন্ত। ২ অগস্ট পিঞ্জোরেই আর এক মহিলার সঙ্গে খারাপ ব্যবহারের জন্য ৫০৬ ধারায় তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয়। তামিলনাড়ুতে নির্বাচনের দায়িত্ব পালনের সময় শূন্যে গুলি চালানোর জন্য বরখাস্ত করা হয়েছিল তাঁকে। ২০১৮ সালে পঞ্চকুলাতে একটি পথ দুর্ঘটনাতেও নাম জড়িয়েছিল তাঁর। কিন্তু সেই সময় কোনও অভিযোগ দায়ের হয়নি। এবার গ্রেফতার করা হল হেমন্তকে।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More