মঙ্গলবার, জুন ২৫

ভোটযন্ত্রে কারচুপির অভিযোগ, ইভিএম মাটিতে আছড়ে ভাঙলেন প্রার্থী

দ্য ওয়াল ব্যুরো: অন্ধ্রপ্রদেশে একই সঙ্গে চলছে লোকসভা ও বিধানসভা নির্বাচন। বৃহস্পতিবার ভোট দিতে গিয়ে ইভিএম খারাপ, এই অভিযোগ তুলে ইভিএম মেশিন আছাড় মেরে ভাঙলেন সেখানকার জনসেনা পার্টির প্রার্থী। ভোটগ্রহণে বাধা দেওয়ার অভিযোগে তাঁকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে খবর, বৃহস্পতিবার সকালে অন্ধ্রপ্রদেশের অনন্তপুর জেলার গুন্টাকাল বিধানসভা কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ চলছিল। সেখানে নিজের পোলিং স্টেশন গুট্টিতে ভোট দিতে যান জনসেনা পার্টির প্রার্থী মধুসূদন গুপ্ত। জানা গিয়েছে, বুথে ঢুকেই তিনি অভিযোগ তোলেন, ইভিএম মেশিনে প্রার্থীদের নাম ও দলীয় প্রতীক ভালোভাবে দেখা যাচ্ছে না। এই অভিযোগ করার পরেই হঠাৎ করে ভোটিং মেশিন তুলে মাটিতে আছাড় মেরে ফেলে দেন তিনি। ফলে ভেঙে যায় ইভিএম মেশিন। সেখানে উপস্থিত কর্মীদের সঙ্গে গন্ডগোলেও জড়িয়ে পড়েন তিনি। বুথের মধ্যে এক উত্তপ্ত পরিস্থিতি তৈরি হয়। সঙ্গে সঙ্গে সেখানে কর্তব্যরত পুলিশকর্মীরা গিয়ে গ্রেফতার করেন ওই প্রার্থীকে। ভোটের কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে তাঁকে পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

এই পুরো ঘঠনার ভিডিয়ো করে রাখেন কেউ। সেটা ছড়িয়ে পড়ে সোশ্যাল মিডিয়ায়। ইতিমধ্যেই ভাইরাল ওই ভিডিয়ো। বিভিন্ন ধরণের কমেন্ট আসছে ওই ভিডিয়োকে কেন্দ্র করে। এই ঘটনা নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক তরজাও। জনসেনা পার্টির তরফে জানানো হয়েছে, রাজ্যের শাসকদল চন্দ্রবাবু নাইডুর তেলুগু দেশম পার্টি ইচ্ছে করেই একাধিক ইভিএম মেশনে কারচুপি করেছে। এর ফলেই মাথা গরম করে ওই কাণ্ড করে ফেলেছেন মধুসূদনবাবু। দলের আরেক নেতা বলেছেন, চন্দ্রবাবু নাইডু ও তাঁর সহযোগীরা জানেন, এ বার অন্ধ্রপ্রদেশে পবন কল্যাণের হাত ধরে এনডিএ জোট ভালো ফল করবে। আর তাই তারা ইচ্ছে করে ইভিএম মেশিনে কারচুপি করছে।

বৃহস্পতিবার অন্ধ্রপ্রদেশের ২৫টি লোকসভা কেন্দ্র ও ১৭৫টি বিধানসভা কেন্দ্রের জন্য ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যেই নিজের বুথে গিয়ে পরিবারের সঙ্গে ভোট দিয়ে এসেছেন মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডু। এই মঙ্গলাগিরি কেন্দ্রের বিধানসভা প্রার্থী হলেন তাঁর ছেলে নাড়া লোকেশ। ওয়াইএসআর কংগ্রেস প্রধান জগনমোহন রেড্ডিও নিজের বুথে গিয়ে ভোট দিয়ে এসেছেন। তবে সকাল থেকেই অভিযোগ করছেন বিরোধীরা। তাঁদের প্রধান অভিযোগ, অনেক কেন্দ্রেই ইভিএম মেশিন নিয়ে সমস্যা দেখা দিচ্ছে। অনেকবার বলার পরেও নির্বাচন কমিশন ব্যবস্থা নিচ্ছে না, এমনটাই অভিযোগ করেছেন তাঁরা। যদিও নির্বাচন কমিশনের তরফে জানানো হয়েছে, ৩৬২টি ইভিএম মেশিনে সমস্যা হয়েছিল। কিন্তু অভিযোগ পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই তা ঠিক করে নেওয়া হয়েছে। তবে ইতিমধ্যেই হিংসায় দু’জনের মৃত্যু হয়েছে অন্ধ্রপ্রদেশে। তাঁর মধ্যে একজন তেলুগু দেশম পার্টির কর্মী বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন

‘দিদি, বর্ডার এলাকায় বিএসএফ ডিসটার্ব করছে’, মমতাকে ফোনে বললেন রবি

Comments are closed.