সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৩

রাহুলের অমেঠি সফরের দিনই কৃষক বিক্ষোভে স্লোগান ‘গো ব্যাক টু ইতালি’

দ্য ওয়াল ব্যুরো: দুবাইয়ে ১১ জানুয়ারি সাংবাদিক সম্মেলন করার পর ‘উধাও’ হয়ে গিয়েছিলেন তিনি। ফের সামনে এসেছেন গতকাল অর্থাৎ নেতাজির জন্মদিনে। উনিশের প্রচার শুরু করেছেন নিজের কেন্দ্র উত্তরপ্রদেশের অমেঠি থেকে। সেই কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীর অমেঠি সফরের দিনই, তাঁর বিরুদ্ধে সেখানে বিক্ষোভ দেখালেন একদল কৃষক। অধিগৃহীত জমি ফেরত বা জমিদাতাদের পরিবারের একজনকে চাকরির দাবিতে বিক্ষোভ দেখালেন ওই কৃষকরা। সেখান থেকেই স্লোগান উঠল, ‘গো ব্যাক টু ইতালি।’

রাহুলের বাবা রাজীব গান্ধী প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন অমেঠিতে সম্রাট সাইকেল কারখানার উদ্বোধন করেছিলেন। সেখানেই বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলেন কৃষকরা। অমেঠির গৌরীগঞ্জের কৃষকরাই মূলত সামিল হয়েছিলেন এই বিক্ষোভে। সংবাদ সংস্থা এএনআই-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সঞ্জয় সিং নামের এক বিক্ষোভকারী বলেন, “রাহুল গান্ধীকে নিয়ে আমরা হতাশ। ওঁর এখানে আসার কোনও দরকার নেই। ইতালিতে ফিরে যান উনি। রাহুলই আমাদের জমি দখল করে রেখেছেন।” তিনি আরও বলেন, “হয় আমাদের চাকরি দিন। না হলে জমি ফেরত দিন।”

প্রসঙ্গত, ১৯৮০ সালে জৈন ব্রাদার্স সাইকেল কারখানা করেছিল অমেঠিতে। সেই কারখানা গড়ে তোলার জন্য অধিগ্রহণ করা হয়েছিল ৬৫.৫৭ একর জমি। কয়েক বছর চলার পর সেই কারখানায় লালবাতি জ্বলে যায়। এরপর ২০১৪ সালে ওই জমি নিলাম করা হয়। সেই সময় ওই জমি নেয় রাজীব গান্ধী ফাউন্ডেশন নামের একটি সংগঠন। একটি সর্বভারতীয় ইংরাজি সংবাদ মাধ্যমের খবর অনুযায়ী, উত্তরপ্রদেশের শিল্পোন্নয়ন নিগমকে গৌরীগঞ্জের এসডিএম আদালত নির্দেশ দেয়, রাজীব গান্ধী ফাউন্ডেশনের থেকে জমি ফিরিয়ে নিতে। কারণ যে দামে তারা জমি নিয়েছিল তা অনেকটাই কম। সূত্রের খবর যে জমির দাম হওয়ার কথা প্রায় ২০ কোটি টাকা, রাজীব গান্ধী ফাউন্ডেশন সেই জমি নিয়েছিল ১৫ লক্ষ টাকায়।

কৃষকদের দাবি, রেকর্ড অনুযায়ী ওই জমি সরকারের। কিন্তু রাহুল গান্ধীরা এখনও সেই জমি দখল করে রয়েছেন। এর আগে রাজীব-পুত্রের বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ তুলেছিলেন কেন্দ্রীয় বস্ত্রমন্ত্রী স্মৃতি ইরানিও।

যদিও কৃষকদের এই বিক্ষোভ বা ‘গো ব্যাক টু ইতালি’ স্লোগানে খুব একটা আমল দিচ্ছে না কংগ্রেস। সাবেক দলের এক মুখপাত্রের কথায়, “উত্তরপ্রদেশে বিজেপি-র পায়ের তলার মাটি সরে যাচ্ছে। এটা বুঝতে পেরেই এখন হাওয়ায় অভিযোগ তোলা শুরু করেছে।” এই বিক্ষোভকে বিজেপি-র করানো বলেও মত কংগ্রেসের অনেক নেতারই।

Comments are closed.