রবিবার, নভেম্বর ১৭

দীপাবলির দূষণে পরীক্ষায় পাশ কলকাতা-মুম্বই, বাজির দাপটে ধোঁয়াশায় ঢাকল দিল্লি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: দীপাবলির রাতে ফের দূষণে রেকর্ড গড়েছে। তবে সমীক্ষা বলছে, গত তিন বছরের তুলনায় এ বার রাজধানী শহরে দূষণের মাত্রা কম। কিন্তু তাতেও যে পরিমাণ বায়ুদূষণ হয়েছে সেটা স্বাভাবিক জনজীবনের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর। তবে দিল্লিতে দূষণের পরিমাণ মারাত্মক হলেও এ যাত্রায় পরীক্ষায় পাশ করেছে কলকাতা এবং মুম্বই।

গত কয়েক বছর ধরেই দীপাবলির দূষণ নিয়ে সতর্কবার্তা দিচ্ছে বিভিন্ন রাজ্য। তবে লাভ হয়নি বিশেষ। এত সতর্কতার পরেও শব্দবাজির বিকট আওয়াজে কান পাতা দায়। সঙ্গে উপরি পাওনা দমবন্ধ করে দেওয়া ধোঁয়া। কেন্দ্রীয় সরকারের ভূমন্ত্রকে এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্সে (একিউআই) ডাহা ফেল করেছে দিল্লি। এই ইনডেক্স অনুযায়ী, ০ থেকে ৫ মাত্রার অর্থ ভালো, ৫১-১০০ সন্তোষজনক, ১০১-২০০ মাঝারি, ২০১-৩০০ খারাপ, ৩০১-৪০০ খুব খারাপ এবং ৪০১-৫০০ অত্যন্ত খারাপ। চলতি বছর দিল্লির বায়ুদূষণ অত্যন্ত খারাপ বা ‘সিভিয়র’ ক্যাটেগরিতে থাকবে বলেই পূর্বাভাস দিয়েছিল এয়ার কোয়ালিটি মনিটরিং সার্ভিস। তবে এ যাত্রায় পূর্বাভাসের তুলনায় খানিকটা কম দূষণ হয়েছে দিল্লিতে। ৩০১-৪০০ ক্যাটেগরিতেই ছিল দিল্লির দূষণের মাত্রা।

রবিবার দীপাবলির রাতে দূষণের পরিমাণ সবচেয়ে বেশি থাকার কথা ছিল দিল্লিতে। তবে পরিসংখ্যান অনুযায়ী রাত ১১টার সময় একিউআই ইনডেক্সে দূষণের মাত্রা ছিল ৩২৭। রাত সাড়ে তিনটে নাগাদ ছিল ৩২৩। তবে সোমবার সকাল সাড়ে আটটা নাগাদ দূষণের মাত্রা বেড়ে হয় ৩৪০। হাল্কা কুয়াশাও দেখা গিয়েছে। দিল্লির মোট ৩৭ জায়গার মধ্যে ৩৬টি জায়গাতেই বায়ু দূষণ ‘সিভিয়ার’ ক্যাটেগরিতেই রয়েছে বলে জানা গিয়েছে। সোমবার ভোররাতে একসময় একিউআই ইনডেক্স পৌঁছে যায় ৯৯৯-তে। গত বছর দীপাবলির পর একিউআই পৌঁছেছিল ৬০০-তে। নিরাপদ অবস্থার থেকে যা প্রায় ১২ গুণ বেশি। ২০১৭ সালে দিল্লির একিউআই ছিল ৩৬৭।

তবে বিষাক্ত বাতাস সেবনের আশঙ্কা থেকে মুক্তি পেয়েছে কলকাতা। রবিবার দীপাবলির রাতে শহরে বাজি পুড়লেও সোমবার সকাল পর্যন্ত একিউআই ইনডেক্সে দূষণের মাত্রা ২০০ পেরোয়নি কলকাতায়। এ বছর দূষণ নিয়ন্ত্রণে শব্দবাজির দাপট রুখতে উৎসবের আগে থেকেই কড়া পদক্ষেপ নিয়েছিল প্রশাসন। কলকাতা ও বিভিন্ন জেলায় নাকা চেকিং ও তল্লাশি চালানো হয়। উদ্ধার হয় প্রচুর পরিমাণ শব্দবাজি। নিয়ম ভাঙলে জেল কিংবা জরিমানা হবে বলেও জানানো হয়েছিল পুলিশের তরফে। শক্ত হাতে হাল ধরতেই মুশকিল আসান হয়েছে অনেকটা। দীপাবলির রাতে AIQ ইনডেক্স পেরোয়নি শহরের দূষণের মাত্রা।

পড়ুন ‘দ্য ওয়াল’ পুজো ম্যাগাজিন ২০১৯–এ প্রকাশিত গল্প

শয্যা উত্তোলন

Comments are closed.