মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ১৭

হিংসার সংস্কৃতি দেশজুড়ে, বিপন্ন ‘ভারত’, খোলা চিঠি অপর্ণা-সহ ২৮ জনের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আগের দিনই পশ্চিমবঙ্গে পার্শ্বশিক্ষকদের উপর পুলিশি হামলার প্রতিবাদে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে খোলা চিঠি দিয়েছিলেন অপর্ণা সেন, কৌশিক সেন সহ বেশ কিছু বিদ্দ্বজন। এ বার সোশ্যাল মিডিয়ায় হিংসার সংস্কৃতি নিয়ে সরব হলেন তাঁরা। এই বিষয়ে সিটিজেনস্পিকইন্ডিয়ার পক্ষ থেকে ২৮ জন বিদ্দ্বজনের সই করা একটি চিঠিও পড়ে শোনান তাঁরা।

বিশিষ্টজনদের প্রধান অভিযোগ সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজেদের মুখ খোলার স্বাধীনতা নিয়ে। কিছুদিন আগেই বলিউডের বিখ্যাত পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপ নিজের টুইটার অ্যাকাউন্ট ডিলিট করে দেন। ডিলিট করে দেওয়ার আগে তিনি লেখেন, “যখন আপনার বাবা-মা হুমকি ফোন পায়, যখন আপনার মেয়ে অনলাইনে হুমকি পায়, তখন মনে হয়, কেউ আছেন, যাঁরা মুখের কথা শুনতে চান না। তাই যে দেশে আমার কথা বলার স্বাধীনতা নেই, সেখানে আমার কথা না বলাই ভালো। এটাই হয়তো আমার শেষ টুইট। এই নতুন ভারতে সবাইকে শুভেচ্ছা জানাই।”

এই প্রসঙ্গেই মঙ্গলবার অপর্ণা সেন, সোহাগ সেন, কৌশিক সেন, পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ের মতো একাধিক বিশিষ্ট ব্যক্তি সমাজের সামনে একটি চিঠি তুলে ধরেছেন। চিঠির মূল বিষয় বস্তু হলো, “স্বাধীন দেশের নাগরিক হিসেবে খোলাখুলি মতামত জানানোর অধিকার সবার আছে। কিন্তু ইদানিং, সোশ্যাল প্ল্যাটফর্মে মুখ খুললেই বিকৃত মন্তব্যের পাশাপাশি সরাসরি আক্রমণের ভয় দেখানো হচ্ছে মতামত প্রকাশকারীকে। এতে মতপ্রকাশ দূরে থাক, কথা বলতেই ভয় পাচ্ছেন সবাই। শুধু অনুরাগ নন, এমন জঘন্য ঘটনার শিকার হয়েছেন আরও অনেকেই। বর্তমানে দেশে এক হিংসার সংস্কৃতি তৈরি হয়েছে।”

এই প্রসঙ্গেই তুলে আনা হয় কৌশিক সেনের কথাও। জয় শ্রী রাম ‘ওয়ার ক্রাই’এ পরিণত হয়েছে, এই অভিযোগ তুলে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে খোলা চিঠি দিয়েছিলেন দেশের ৪৯ জন বিশিষ্ট ব্যক্তি। সেই চিঠিতে অনুরাগ কাশ্যপের মতো সই করেছিলেন অপর্ণা, কৌশিকও। তারপর ফোনে একাধিকবার খুনের হুমকি দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন কৌশিক সেন। এইসব হুমকির বিরুদ্ধে ফের সরব হলেন বিদ্দ্বজনেরা।

Comments are closed.