আরও ২৩ হাজার করোনা আক্রান্ত একদিনে, দেশে সুস্থও হয়ে উঠেছেন প্রায় ৪ লাখ মানুষ

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ভারতে প্রতিদিন রেকর্ড গড়ছে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা। গতকাল আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছিল ২০ হাজারের বেশি। সেটাই ছিল এযাবৎ সর্বাধিক সংক্রমণ। সেই রেকর্ডও ভেঙে গেল। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ২৩ হাজার মানুষ। এর ফলে আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় সাড়ে ৬ লাখের কাছে পৌঁছে গিয়েছে।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের বুলেটিন অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ২২,৭৭১ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এর ফলে ৪ জুলাই, শনিবার, সকাল ৮টা পর্যন্ত ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৬,৪৮,৩১৫।

স্বাস্থ্যমন্ত্রকের বুলেটিন জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে করোনা আক্রান্ত হয়ে ৪৪২ জনের মৃত্যু হয়েছে। অর্থাৎ এখনও পর্যন্ত দেশে করোনায় মৃতের সংখ্যা ১৮,৬৫৫। ভারতে করোনায় মৃত্যুহার ২.৮৮ শতাংশ। মহারাষ্ট্র ও দিল্লির মৃতের হিসেবে গরমিল হওয়ায় এই মৃত্যুহার হঠাৎ করেই কিছুটা বেড়ে গিয়েছিল। কিন্তু ফের তা কমতে কমতে ৩ শতাংশের নীচে নেমেছে। যত বেশি নমুনা পরীক্ষা করা হবে, তত মৃত্যুহার কমবে বলেই জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।

আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে ভারতে করোনা থেকে সুস্থ হয়ে ওঠা মানুষের সংখ্যাও বাড়ছে। বুলেটিন জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছে উঠেছেন ১৪,৩৩৫ জন। ভারতে মোট সুস্থ হয়ে ওঠা ব্যক্তির সংখ্যা ৩,৯৪,২২৭ জন। এই মুহূর্তে দেশে সুস্থতার হার ৬০.৮১ শতাংশ। এই সুস্থতার হার ক্রমাগত বেড়েই চলেছে। অর্থাৎ এই মুহূর্তে দেশে কোভিড অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা ২,৩৫,৪৩৩।

ভারতে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে মহারাষ্ট্রে। এই মুহূর্তে মারাঠা প্রদেশে মোট আক্রান্ত ১,৯২,৯৯০। অর্থাৎ দেশের মোট আক্রান্তের ২৯.৭৭ শতাংশ এই রাজ্যেই রয়েছে। মহারাষ্ট্রে কোভিডে মারা গিয়েছেন ৮৩৭৬ জন। অর্থাৎ দেশের মোট মৃত্যুর ৪৪.৯০ শতাংশ এই রাজ্যে হয়েছে। মহারাষ্ট্রের মধ্যে আবার আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা সবথেকে বেশি বাণিজ্যনগরী মুম্বইয়ে।

আক্রান্তের সংখ্যায় মহারাষ্ট্রের পরেই রয়েছে তামিলনাড়ু। ভারতের দ্বিতীয় রাজ্য হিসেবে এই রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ছাড়িয়ে গিয়েছে। দক্ষিণের এই রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ১,০২,৭২১। মৃত্যু হয়েছে ১৩৮৫ জনের। খুব বেশি পিছিয়ে নেই রাজধানীও। দিল্লিতে আক্রান্ত হয়েছেন ৯৪,৬৯৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ২৯২৩ জনের। গুজরাতে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৪,৬০০ জন। মারা গিয়েছেন ১৯০৪ জন।

দিল্লি, মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু ও গুজরাত, এই চার রাজ্যেই মোট আক্রান্তের সংখ্যা সওয়া চার লাখ ছাড়িয়ে গিয়েছে। এই চার রাজ্য মিলিয়ে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৪,২৫,০০৬ জন। এই সংখ্যা দেশের মোট আক্রান্তের ৬৫.৫৬ শতাংশ। মৃত্যুর ক্ষেত্রে এই চার রাজ্যের পরিসংখ্যান তো আরও ভয়াবহ। এই চার রাজ্য মিলিয়ে মোট ১৪,৫৮৮ জনের মৃত্যু হয়েছে, যা দেশের মোট মৃত্যুর ৭৮.২০ শতাংশ।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

You might also like

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More