দেশে ৫৩ হাজার আক্রান্ত একদিনে, মোট সংক্রামিত ১৮ লাখ ছাড়াল, সুস্থ হয়েছেন প্রায় ১২ লাখ

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

দ্য ওয়াল ব্যুরো: গত কয়েক দিন ধরে প্রতিদিন দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ৫০ হাজারের বেশি বাড়ছে। সেই ট্রেন্ড বজায় থাকল সোমবারও। এদিন দেশে নতুন করে প্রায় ৫৩ হাজার মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। তার সঙ্গেই মোট আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়ে গিয়েছে ১৮ লাখ। তবে সেইসঙ্গে ২৪ ঘণ্টায় সুস্থও হয়েছেন ৪০ হাজারের বেশি মানুষ। অর্থাৎ মোট সুস্থ মানুষের সংখ্যা এই মুহূর্তে প্রায় ১২ লাখ। ভারতে সুস্থতার হার এই মুহূর্তে ৬৫ শতাংশের বেশি।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের বুলেটিন অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৫২ হাজার ৯৭২ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এর ফলে ৩ অগস্ট, সোমবার, সকাল ৮টা পর্যন্ত ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৮ লাখ ৩ হাজার ৬৯৫ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে করোনা আক্রান্ত হয়ে ৭৭১ জনের মৃত্যু হয়েছে। অর্থাৎ এখনও পর্যন্ত দেশে করোনায় মৃতের সংখ্যা ৩৮ হাজার ১৩৫ জন। ভারতে করোনায় মৃত্যুহার ২.১১ শতাংশ। দেশে মৃত্যুহার প্রতিদিন কমছে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানিয়েছে বিশ্বে করোনায় মৃত্যহার সবথেকে কম ভারতে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রকের বুলেটিন জানিয়েছে, আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে ভারতে করোনা থেকে সুস্থ হয়ে ওঠা মানুষের সংখ্যাও বাড়ছে। গতকাল সুস্থ হয়েছিলেন ৫১ হাজারের বেশি মানুষ যা একদিনে এযাবৎ ছিল সর্বোচ্চ। বুলেটিন জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪০ হাজার ৫৭৪ জন। ভারতে মোট সুস্থ হয়ে ওঠা ব্যক্তির সংখ্যা ১১ লাখ ৮৬ হাজার ২০৩ জন। এই মুহূর্তে দেশে সুস্থতার হার ৬৫.৭৭ শতাংশ। এই সুস্থতার হার প্রতিদিনই বাড়ছে। অর্থাৎ এই মুহূর্তে দেশে কোভিড অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা ৫ লাখ ৭৯ হাজার ৩৫৭ জন। মোট আক্রান্তের ৩২.১২ শতাংশ রোগী এই মুহূর্তে অ্যাকটিভ রয়েছেন।

ভারতে আক্রান্তের সংখ্যা সবথেকে বেশি মহারাষ্ট্রে। এই রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ৪ লাখ ৪১ হাজার ২২৮ জন। মহারাষ্ট্রে কোভিডে মারা গিয়েছেন ১৫ হাজার ৫৭৬ জন। তবে এর মধ্যেই এই রাজ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২ লাখ ৭৬ হাজার ৮০৯ জন। অর্থাৎ এই মুহূর্তে মহারাষ্ট্রে অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা ১ লাখ ৪৮ হাজার ৮৪৩ জন।

আক্রান্তের সংখ্যায় মহারাষ্ট্রের পরেই রয়েছে তামিলনাড়ু। দক্ষিণের এই রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ৫৭ হাজার ৬১৩ জন। মৃত্যু হয়েছে ৪১৩২ জনের। আক্রান্তের সংখ্যায় দিল্লিকে টপকে তিন নম্বরে এসেছে অন্ধ্রপ্রদেশ। এই রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৫৮ হাজার ৭৬৪ জন। মৃত্যু হয়েছে ১৪৭৪ জনের। তারপরেই রয়েছে দিল্লি। রাজধানীতে এই মুহূর্তে আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৩৭ হাজার ৬৭৭ জন। মৃত্যু হয়েছে ৪০০৪ জনের। পাঁচ নম্বর রাজ্য হিসেবে কর্নাটকে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৩৪ হাজার ৮১৯ জন। মৃত্যু হয়েছে ২৪৯৬ জনের। ছ’নম্বরে রয়েছে উত্তরপ্রদেশ। এই রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ৯২ হাজার ৯২১ জন। মৃত্যু হয়েছে ১৭৩০ জনের।

মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু, অন্ধ্রপ্রদেশ, দিল্লি, কর্নাটক, ও উত্তরপ্রদেশ, এই ছয় রাজ্যেই মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১২ লাখ পেরিয়ে গিয়েছে। এই রাজ্যগুলি মিলিয়ে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ১২ লাখ ২৩ হাজার ২২ জন। এই সংখ্যা দেশের মোট আক্রান্তের ৬৭.৮১ শতাংশ। এই ছয় রাজ্য মিলিয়ে মোট ২৯ হাজার ৪১২ জনের মৃত্যু হয়েছে, যা দেশের মোট মৃত্যুর ৭৭.১৩ শতাংশ।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

You might also like

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More