বুধবার, অক্টোবর ১৬

চিদম্বরমের সঙ্গে দেখা করতে তিহাড় যাচ্ছেন সনিয়া-মনমোহন 

দ্য ওয়াল ব্যুরো: গত ৫ সেপ্টেম্বর থেকে তিহাড় জেলেই রয়েছেন প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরম। সেখানেই কাটিয়েছেন নিজের ৭৪তম জন্মদিন। সূত্রের খবর, আজ সোমবার সেখানেই তাঁর সঙ্গে দেখা করতে যাবেন কংগ্রেসের অন্তর্বর্তীকালীন সভাপতি সনিয়া গান্ধী এবং প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং।

আইএনএক্স মিডিয়া দুর্নীতি মামলায় ২১ অগস্ট প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরমকে গ্রেফতার করেছিল সিবিআই। তাঁকে গ্রেফতার করার সময় সিবিআই যে কায়দা নিয়েছিল তা হার মানাবে বলিউডের যে কোনও থ্রিলার মুভির স্ক্রিপ্টকেও। গ্রেফতারের পর ১৫ দিন সিবিআই হেফাজতেই ছিলেন তিনি। শেষ পর্যন্ত তাঁকে তিহাড় জেলে পাঠানোর নির্দেশ দেয় সিবিআই-এর বিশেষ আদালত। চিদম্বরমের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি অর্থমন্ত্রী থাকাকালীন আইএনএক্স মিডিয়া নামে এক সংস্থাকে বেআইনিভাবে বিদেশ থেকে ৩০৫ কোটি টাকা পাইয়ে দিয়েছিলেন। সংস্থার তৎকালীন দুই মালিক পিটার ও ইন্দ্রাণী মুখার্জি চিদম্বরমের ছেলে কার্তিকে কিকব্যাক তথা ঘুষ বাবদ বিপুল অর্থ দিয়েছিলেন।

গ্রেফতারির আগে চিদম্বরমের আগাম জামিনের আর্জিও খারিজ করে দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। সে সময় দেশের শীর্ষ আদালতে দাঁরিয়ে চিদম্বরম জানিয়েছিলেন, তাঁকে হেনস্থা করার জন্যই তিহাড়ে পাঠানোর ব্যবস্থা করেছে সিবিআই। ২০১৭ সালের ১৫ মে সিবিআই প্রথমবার আইএনএক্স মামলায় এফআইআর করে। তাতে বলা হয়, চিদম্বরম অর্থমন্ত্রী থাকাকালীন বিধি ভেঙে ইন্দ্রাণী মুখার্জিদের কোম্পানিকে বিদেশি বিনিয়োগ পাইয়ে দিয়েছিলেন। ২০১৮ সালে এনফোর্সমেন্ট ডায়রেক্টরেট চিদম্বরমের বিরুদ্ধে টাকা তছরুপের মামলা করে। ওই বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে কার্তিকে গ্রেফতার করে সিবিআই। পরে দিল্লি হাইকোর্ট তাঁকে জামিন দেয়।

জেলে থাকলেও তাঁর টুইটার হ্যান্ডেল থেকে দেশের অর্থনীতি সংক্রান্ত বিষোয়ে বেশ কয়েকবার উদ্বেগও প্রকাশ করা হয়েছে। তিহাড় জেলে যাওয়ার সময় থেকে দেশের অর্থনীতি নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে কটাক্ষ করে চলেছেন চিদম্বরম। গাড়িতে ওঠার আগে হাতের পাঞ্জা দেখিয়ে সাংবাদিকদের উদ্দেশে বলেছিলেন, “পাঁচ শতাংশ জানেন?” বোঝাতে চেয়েছিলেন জিডিপি-র কথা। মাঝে বাড়ির লোককে বলে গাড়ি শিল্পে মন্দা এবং সামগ্রিক সঙ্কট নিয়ে টুইট করেছিলেন চিদম্বরম।

Comments are closed.