শুক্রবার, নভেম্বর ২২
TheWall
TheWall

সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশের পরেও বাহিনীতে সমকামিতা ও পরকীয়া শাস্তিযোগ্য অপরাধ, জানাল ভারতীয় সেনা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশ দিয়েছে সমকামিতা ও পরকীয়া শাস্তিযোগ্য অপরাধ নয়। কিন্তু তারপরেও সেনার ভিতরে সমকামিতা ও পরকীয়াকে শাস্তিযোগ্য অপরাধ বলেই গণ্য করা হবে, এমনটাই জানানো হল সেনার তরফে। ভারতীয় সেনা জানিয়েছে, বাহিনীর মধ্যে শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্যই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে সেনা। এই নির্দেশের ব্যাপারে দেশের শীর্ষ আদালতের নতুন করে ভাবা উচিত বলেই মনে করে সেনা।

সেনা সূত্রে খবর, সেনাবাহিনীর আইনের মধ্যে এই বিষয়ে একটা ধারা রয়েছে। এক বছর আগে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশের বিরুদ্ধে প্রতিরক্ষামন্ত্রকের দ্বারস্থ হয়েছে সেনা। দাবি করা হয়েছে, দেশের শীর্ষ আদালতের এই নির্দেশের ফলে শৃঙ্খলা বিঘ্নিত হতে পারে। বুধবার ভারতীয় সেনাবাহিনীর মুখ্য সামরিক প্রশাসক জেনারেল অশ্বিনী কুমার জানিয়েছেন, কিছু কিছু ক্ষেত্রে এই নির্দেশিকা আইনত ঠিক হলেও নীতিগতভাবে ভুল।

অশ্বিনী কুমার আরও জানিয়েছেন, “দেশের শীর্ষ আদালত কোনও নির্দেশ দিলে তা সবাই মানতে বাধ্য। কিন্তু সব ক্ষেত্রে যে এই নির্দেশ ঠিক তা নাও হতে পারে। আমরা সেনাবাহিনীর মধ্যে এই নির্দেশিকা পর্যালোচনা করে দেখেছি। কারণ সেনায় এই ধরনের কোনও ঘটনা ঘটলে তাতে সেনা আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নিতে হয়। আগে সেনা আইনের ৪৫ নম্বর ধারায় এই ধরনের ঘটনার বিচার করা হত। কিন্তু এ বার থেকে ৪৬ নম্বর ধারা অনুযায়ী এই ঘটনার বিচার হবে। জওয়ানদের মধ্যে শৃঙ্খলাভঙ্গ ও দুর্নীতি কোনওভাবেই বরদাস্ত করা হবে না।”

সেনাবাহিনীর তরফে জানানো হয়েছে, গত বছরে ৫-৬ জন অফিসারকে এই আইনে শাস্তি দেওয়া হয়েছে। কারণ সেনাবাহিনীতে সমকামিতা ও পরকীয়া সামাজিক অবক্ষয়ের প্রতীক হিসেবে মানা হয়। এই বছরের শুরুতেই সেনাপ্রধান জেনারেল বিপিন রাওয়াত জানিয়েছিলেন, সমকামিতা ও পরকীয়া সেনাতে কোনওমতেই মানা হবে না। তিনি বলেছিলেন, “সেনার মধ্যে এই ধরনের কাজ আমরা মানতেই পারি না। তাই এই ধরনের ঘটনা সামনে এলে সেনা আইনে তার বিচার হবে। সেনা আইন তৈরি হওয়ার সময় এই ধরনের কোনও ঘটনা ঘটত না। তাই আইন করা হয়নি। পরবর্তীকালে আইনে এই ধারা আনা হয়।”

পড়ুন ‘দ্য ওয়াল’ পুজো ম্যাগাজিন ২০১৯–এ প্রকাশিত গল্প

প্রতিফলন

Comments are closed.