TheWall

ভয় নেই, নাগরিকত্ব পেতে রেশন কার্ড বা কোনও নথি লাগবে না: অমিত শাহ

0

দ্য ওয়াল ব্যুরো: এনআরসি তথা জাতীয় নাগরিক পঞ্জিকরণের আতঙ্কে বাংলার গ্রামেগঞ্জে একাংশ মানুষের মধ্যে যখন রেশন কার্ড বানানোর ও নথিপত্র ঠিক করার হিড়িক পড়ে গিয়েছে, তখন সোমবার সংসদে দাঁড়িয়ে অভয় দিতে চাইলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ।

এদিন লোকসভায় নাগরিকত্ব সংশোধন বিলের জবাবি বক্তৃতায় অমিত শাহ বলেন, “আমরা লক্ষ্য করেছি এনআরসি ও নাগরিকত্ব সংশোধন বিল নিয়ে কয়েকটি রাজ্যে রাজনৈতিক দলগুলি মানুষকে বিভ্রান্ত করছে। কোথাও রটিয়ে দেওয়া হচ্ছে যে নাগরিকত্ব পেতে বাধ্যতামূলক ভাবে রেশন কার্ড লাগবে, কোথাও বলা হচ্ছে জন্মপত্রিকা লাগবে। আর সেই ভয়ে লোক সরকারি অফিসের সামনে হত্যে দিচ্ছেন, লম্বা লম্বা লাইন পড়ে যাচ্ছে। কিন্তু এটা স্রেফ ভ্রান্ত প্রচার”।

একথা বলেই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী বলেন, “আমি সবাইকে অভয় দিয়ে বলছি, নাগরিকত্ব পেতে রেশন কার্ড লাগবে না। কোনও নথিই লাগবে না। আধখানাও নয়। শরণার্থী হিন্দু, জৈন, খ্রীষ্টান, বৌদ্ধ, পারসি, শিখ সবাই এমনিই নাগরিকত্ব পাবেন।” পরে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী আরও বলেন, এনআরসি নিয়েও যে বিভ্রান্তি ছড়ানো হচ্ছে তাও ঠিক নয়। কোনও ভারতীয়কে নাগরিক পঞ্জি থেকে বাদ দেওয়া হবে না। লোকসভায় কংগ্রেস নেতা অধীর চৌধুরীর প্রশ্নের জবাবে আরও স্পষ্ট করে অমিত শাহ বলেন, কোনও বাঙালি হিন্দুকেও নাগরিক পঞ্জির বাইরে রাখা হবে না।

প্রসঙ্গত, এনআরসি বিতর্ক শুরু হওয়ার পর পশ্চিমবঙ্গেও নতুন একধরনের রেশন কার্ড শুরু হয়েছে। রাজ্য সরকার ঘোষণা করেছে, এখন থেকে দু’ধরনের রেশন কার্ড থাকবে। যাঁরা রেশন কার্ডের মাধ্যমে রেশন তোলেন তাঁদের জন্য একরকম, আর এক ধরনের রেশন কার্ড থাকবে যা পরিচয়পত্র হিসাবে ব্যবহার করা যেতে পারে।

অনেকের মতে, এই ব্যবস্থার দিকেই আঙুল তুলতে চেয়েছেন অমিত শাহ। বোঝাতে চেয়েছেন, নাগরিকত্ব প্রমাণের জন্য রেশন কার্ডের প্রয়োজন নেই।

রাজনৈতিক শিবিরের অনেকেই আন্দাজ করছেন, বাংলায় নতুন নাগরিকত্ব বিধিকে রাজনৈতিক অস্ত্র করতে চাইছে বিজেপি। বিশেষ করে বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী জেলাগুলোয় তা হয়ে উঠতে গেরুয়া শিবিরের প্রচারের বড় হাতিয়ার। কারণ, উত্তর চব্বিশ পরগনা, নদিয়ার মতো জেলায় মতুয়া-সহ শরণার্থীদের সংখ্যা বিপুল। একই ভাবে উত্তরবঙ্গের বাংলাদেশ সীমান্ত লাগোয়া জেলাগুলোতেও প্রচুর শরণার্থী রয়েছেন।

এদিন অমিত শাহ বলেন, অনেকে বলছেন যে নাগরিকত্ব বিলের জন্য ক্ষেত্র প্রস্তুত করতেই এনআরসি নিয়ে আগে হই হই করেছে বিজেপি। কিন্তু আমি তাদের বলছি, আলাদা করে ক্ষেত্র প্রস্তুত করার প্রয়োজন আমাদের ছিল না। নাগরিকত্ব আইন সংশোধন করা বিজেপির ভোট প্রতিশ্রুতি ছিল। সেটাই পালন করে দেখাতে চাইছি।

Share.

Comments are closed.