Breaking: অখিলেশের পর মায়া, ১৪০০ কোটি টাকার মূর্তি কেলেঙ্কারির ঘটনায় হানা ইডির

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সপ্তাহ খানেক আগেই বালি খাদান কেলেঙ্কারিতে যুক্ত থাকার অভিযোগে সপা নেতা তথা উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদবের মন্ত্রিসভার বেশ কিছু মন্ত্রীর বাড়িতে হানা দিয়েছিল সিবিআই। এ বার ১৪০০ কোটি টাকার মূর্তি কেলেঙ্কারির ঘটনায় বসপা নেত্রী তথা উত্তরপ্রদেশের আরেক প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মায়াবতীর যুক্ত থাকার অভিযোগে বৃহস্পতিবার উত্তরপ্রদেশের ছটি জায়গায় হানা দেন ইডি আধিকারিকরা।

ইডি সূত্রে খবর, বেশ কিছু আমলাও এই ঘটনায় কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার নিশানায় রয়েছেন। এ দিন তৎকালীন উত্তরপ্রদেশ নির্মাণ নিগমের ম্যানেজিং ডিরেক্টর সি পি সিংয়ের লখনৌয়ের বাড়িতে হানা দেন ইডি আধিকারিকরা। এই দুর্নীতিতে যুক্ত থাকার অভিযোগে এই নির্মাণের সঙ্গে যুক্ত অনেক অফিসার ও কনট্রাক্টরদের বাড়িতেও তল্লাশি চালিয়েছে ইডি।

গত সপ্তাহে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার আধিকারিকরা বালি খাদান কেলেঙ্কারিতে যুক্ত থাকার অভিযোগে উত্তরপ্রদেশের ১৪টি জায়গায় অভিযান চালায়। ২০১২-১৬ সালের মধ্যে অখিলেশ যাদব মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালীন হামিরপুর জেলায় এই বালি খাদান কেলেঙ্কারি হয়েছিল বলে অভিযোগ। এই হানার পরে অখিলেশ যাদব মন্তব্য করেছেন, কেন্দ্রের নির্দেশেই নির্বাচনের ঠিক আগে বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের নিশানা বানাচ্ছে সিবিআই ও ইডি। অখিলেশের জোটসঙ্গী মায়াবতীও এই বক্তব্যকে সমর্থন করেন।

পাঁচ মাস আগে এলাহাবাদ হাইকোর্ট এই মূর্তি কেলেঙ্কারির ব্যাপারে ভিজিল্যান্সের রিপোর্ট জমা দিতে বলে। বিচারপতি ডিবি ভোসালে ও বিচারপতি যশবন্ত বর্মার ডিভিশন বেঞ্চ প্রশাসনকে নির্দেশ দেন, যাতে দুর্নীতির সঙ্গে যুক্ত কেউ ছাড়া না পায়। ২০০৭ থেকে ২০১২ সালের মধ্যে লখনৌ ও নয়ডাতে এই দলিত মেমোরিয়াল তৈরির জন্য যে বেলেপাথর কেনা হয়েছিল, তাতে দুর্নীতি করা হয়েছিল, এই অভিযোগে উত্তরপ্রদেশের লোকায়ুক্ত প্রাক্তন মন্ত্রী নাসীমুদ্দিন সিদ্দিকি ও বাবু সিং কুশওয়াহা-সহ ১৯৭ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনেন। লোকায়ুক্ত এনকে মেহরোত্রা প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদবের কাছে ৮৮ পাতার একটি রিপোর্ট জমা দেন। এই রিপোর্টে লেখা ছিল, বসপা নেত্রী মায়াবতীর বিরুদ্ধে কোনও তথ্যপ্রমাণ পাওয়া যায়নি।

প্রাক্তন মন্ত্রী নাসীমুদ্দিন সিদ্দিকিকে আয় বহির্ভূত সম্পত্তির অভিযোগে আগেই বরখাস্ত করেছে বসপা। তারপরে তিনি কংগ্রেসে যোগদান করেছেন। অন্য অভিযুক্ত মন্ত্রী বাবু সিং এই মুহূর্তে জেল খাটছেন। এরা দুজন ছাড়া অনেক ইঞ্জিনিয়ারের নাম এফআইআরের তালিকায় নথিভুক্ত করা হয়েছে।

লোকায়ুক্তর রিপোর্টে আরও জানানো হয়েছে, এই মেমোরিয়াল তৈরি করার জন্য যে বেলেপাথর কেনা হয়েছিল, তাতে ৪ হাজার ১৮৮ কোটি টাকা খরচ করা হয়েছিল। এই টাকার মধ্যে ৩৫ শতাংশ টাকা আমলা, রাজনৈতিক ব্যক্তি, কনট্রাক্টর ও ইঞ্জিনিয়ারদের পকেটে ঢুকেছে।

এই লোকায়ুক্ত রিপোর্টের উপর ভিত্তি করেই আদালতের নির্দেশে হানা দিচ্ছে ইডি। তবে এই হানা নিয়ে কেন্দ্রর দিকে আঙুল তুলেছেন বসপা নেতারা। তাঁদের অভিযোগ, বিজেপি বুঝতে পেরেছে, উত্তরপ্রদেশে সপা-বসপার জোটের পর এই রাজ্যে শাসক দল হালে পানি পাবে না। তাই নির্বাচনের আগে অখিলেশ যাদব- মায়াবতীদের বিরুদ্ধে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাদের ব্যবহার করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন 

https://www.thewall.in/2019/01/news-kolkata-cbi-raids-mamata-banerjees-personal-assistant-manik-majumders-house/

The Wall-এর ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন 

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More