মঙ্গলবার, অক্টোবর ১৫

বায়ুসেনা দিবসে মিগ ২১ বাইসন ওড়ালেন অভিনন্দন, দেওয়া হল সম্বর্ধনা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আজ বায়ুসেনার প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষ্যে উত্তরপ্রদেশের গাজিয়াবাদের হিন্ডন এয়ারবেসে চলছে সেলিব্রেশন।

উপস্থিত রয়েছেন ভারতীয় বায়ুসেনা প্রধান আরকেএস ভাদৌরিয়া। রয়েছেন সেনাবাহিনী ও নৌবাহিনীর প্রধানও। এশিয়ার সবচেয়ে বড় এই বায়ুসেনা ঘাঁটিতে এ দিন বায়ুসেনার বিভিন্ন বিভাগের নানা প্রদর্শনী হয়। সেনা জওয়ান, অফিসারদের মেডেল দিয়ে সম্মানিত করেন বায়ুসেনা প্রধান ভাদৌরিয়া। তিন বাহিনীর তরফেই নানারকমের প্রদর্শনী হয় এ দিনের অনুষ্ঠানে।

এই অনুষ্ঠানেই মিগ ২১ বাইসন জেট ওড়ালেন উইং কম্যান্ডার অভিনন্দন বর্তমান। মিগ ২১ বাইসন জেটের একটি দলের নেতৃত্ব দেন অভিনন্দন। আকাশে নানা রকমের প্রদর্শনী দেখান তাঁরা। এই প্রদর্শনী শেষে অভিনন্দনকে সম্বর্ধনা জানান এয়ার চিফ মার্শাল।

এ দিনের অনুষ্ঠানেও উঠে আসে পুলওয়ামা হামলার প্রসঙ্গ। বায়ুসেনা প্রধান আরকেএস ভাদৌরিয়া বলেন, পুলওয়ামায় আত্মঘাতী হামলা আমাদের শিক্ষা দিয়েছে যে, দেশের নিরাপত্তার সঙ্গে যুক্ত সকলকে সবসময় সচেতন থাকতে হবে। পাশাপাশি তিনি এও বলেছেন যে, চারপাশের নিরাপত্তা ব্যবস্থা এখন সত্যিই মাথাব্যথার কারণ।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি জম্মু-শ্রীনগর হাইওয়েতে সিআরপিএফ-এর কনভয়ে আত্মঘাতী হামলা চালায় পাক মদতপুষ্ট জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মহম্মদ। শহিদ হন ৪০ হন জওয়ান। এরপর পাল্টা জবাব দেয় বায়ুসেনা। এয়ার স্ট্রাইক করে পাকিস্তানের ভিতর ঢুকে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয় বালাকোটে থাকা জইশের সবচেয়ে সক্রিয় এবং শক্তিশালী ঘাঁটি।

এ দিন বায়ুসেনার প্রতিষ্ঠা দিবসের অনুষ্ঠানে পুলওয়ামা হামলার প্রসঙ্গ টেনে এয়ার চিফ মার্শাল ভাদুরিয়া বলেন, “পুলওয়ামার হামলার পর বালাকোট এয়ার স্ট্রাইকের ঘটনা থেকেই বোঝা যায় জঙ্গি হানার মোকাবিলায় সরকারের অবস্থানের পরিবর্তন হয়েছে। এই এয়ার স্ট্রাইক রাজনৈতিক নেতৃত্বের কঠোর মনোভাবের ফলাফল। সন্ত্রাসের ষড়যন্ত্রকারীদের শাস্তি দেওয়ার জন্য কঠোর পদক্ষেপ নিয়েছিল সরকার।”

Comments are closed.