বুধবার, সেপ্টেম্বর ১৮

সোপোরের বাড়ি বাড়ি ঢুকে হামলা, হুমকি পোস্টার, পাকড়াও আট লস্কর জঙ্গি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: গত এক সপ্তাহ ধরে টালমাটাল দক্ষিণ কাশ্মীরের সোপোর।  গোয়েন্দা সূত্র জানাচ্ছে, সোপোরে ইতিমধ্যেই ঘাঁটি গেড়েছে লস্করের একাধিক জঙ্গি।  রাজ্য পুলিশের দাবি, বাড়ি বাড়ি ঢুকে হুমকি দিচ্ছে জঙ্গিরা। গ্রামবাসীদের ধরে ধরে চলছে মারধর। গোটা এলাকা ছেয়ে গেছে হুমকি পোস্টারে। সোমবার সোপোরের গোপন ডেরা থেকে আট লস্কর জঙ্গিকে পাকড়াও করেছে সেনা ও রাজ্য পুলিশের বিশেষ বাহিনী। ধৃতদের কাছ থেকে আধুনিক আগ্নেয়াস্ত্র ও নাশকতার বার্তা লেখা পোস্টার উদ্ধার হয়েছে।

জম্মু-কাশ্মীর পুলিশ জানিয়েছে, গত শনিবার সোপোরের একটি বাড়িতে ঢুকে চারজনের উপর নির্যাতন চালায় জঙ্গিরা। ক্ষতবিক্ষত করা হয় বছর দুয়েকের একটি মেয়েকেও। বাসিন্দাদের দাবি, প্রত্যেক বাড়িতে ঢুকেই হামলা চালাচ্ছে জঙ্গিরা। হুমকি পোস্টার সাঁটা হচ্ছে এলাকার বাজার, দোকানগুলিতে। সোমবার বেলার দিকে গোটা এলাকা ঘিরে ফেলে পুবিশ ও সেনাবাহিনী। পোস্টার-সহ হাতে নাতে ধরা পড়ে আট জঙ্গি।

পুলিশ জানিয়েছে ধৃতদের নাম, আজিজ মীর, ওমর মীর, তৌসিফ নাজার, ইমতিয়াজ নাজার, ওমর আকবর, ফৈজান লতিফ, দানিশ হাবিব এবং সৌকত আহমেদ মীর। এরা লস্করের সক্রিয় সদস্য।

জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে টানাপড়েনের মাঝেই ভারতে নাশকতা চালাতে উঠে পড়ে লেগেছে পাক মদতে পুষ্ট জঙ্গিরা এমন তথ্য আগেই দিয়েছে জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা (এনআইএ)।  শুধু উপত্যকা নয়, জঙ্গিদের আতস কাঁচের নীচে রয়েছে দক্ষিণের রাজ্যগুলিও। গুজরাতে পাক সীমান্তে কয়েকটি পরিত্যক্ত নৌকাও মিলেছে। এনআইএ জানাচ্ছে,  জলের নীচ দিয়ে হামলা চালানোর জন্য জইশ জঙ্গিদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে।  কচ্ছ অঞ্চলে সমুদ্রপথে পাক জঙ্গিরা ঢুকে পড়েছে বলে জানাচ্ছে গোয়েন্দা সূত্র। ফলে গুজরাতের বন্দরে হামলার আশঙ্কা রয়েছে। সম্প্রতি তামিলনাড়ু ও কেরলেও জইশ জঙ্গিদের একটি দল ঢুকে পড়েছে বলে গোয়েন্দাদের তরফে সতর্ক করা হয়েছে দুই রাজ্যকে। সেখানকার গুরুত্বপূর্ণ শহরগুলিতে চূড়ান্ত সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

পাক গুপ্তচর সংস্থা আইএসআইয়ের সাহায্যে কাশ্মীরে নতুন করে সন্ত্রাস ছড়াতে কোমর বেঁধেই নেমে পড়েছে জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মহম্মদের প্রধান মাসুদ আজহার।  গত মে মাসে,  আন্তর্জাতিক চাপের মধ্যে মাসুদের জন্য নিরাপদ আস্তানার ব্যবস্থা করেছিল পাক সরকার। বেশ কয়েক মাস গা ঢাকা দিয়ে থাকার পর ফের নাশকতার ছক কষছে জইশ মাথা। নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর একাধিক লঞ্চ প্যাডে জঙ্গি ও পাক সেনার নতুন করে জমায়েত লক্ষ্য করা গেছে। গোয়েন্দারা খবর দিয়েছে, নাশকতা চালাতে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র-বিস্ফোরক জমা করছে জঙ্গিরা।

Comments are closed.