শুক্রবার, নভেম্বর ২২
TheWall
TheWall

অযোধ্যা রায়: প্রধান দশটি বিষয় জানুন

দ্য ওয়াল ব্যুরো: চল্লিশ দিন টানা শুনানির পর ঐতিহাসিক অযোধ্যা মামলার রায় স্থগিত রেখেছিল সুপ্রিম কোর্ট। শুক্রবার রাত সাড়ে ন’টা নাগাদ শীর্ষ আদালতের পক্ষ থেকে জানানো হয়, শনিবার সকাল সাড়ে দশটার সময় অযোধ্যা মামলার রায় দেবে প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের নেতৃত্বাধীন পাঁচ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চ। সেই রায় দিল দেশের শীর্ষ আদালত। দেখে নিন ঐতিহাসিক রায়ের প্রধান ১০টি বিষয়-

  • অযোধ্যায় মসজিদ কোনও খালি জমির উপর নির্মিত হয়নি। সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ বলেন, পুরাতত্ত্ব বিভাগ তাদের যে রিপোর্টে জানিয়েছিল, ওই বিতর্কিত জমিতে তার আগে একটি কাঠামো ছিল। যা সম্ভবত দ্বাদশ শতকে নির্মিত হয়েছিল। তবে মন্দিরই ছিল কিনা তা পুরাতত্ত্ব বিভাগ স্পষ্ট করে জানায়নি।
  • অযোধ্যায় মসজিদের দাবি কেউ কখনও ছেড়ে দেয়নি। ৯২ সালে মসজিদ ভেঙে দেওয়া হয়েছিল। তার পর নমাজ পড়া বন্ধ হয়ে গিয়েছে ঠিকই। কিন্তু তার মানে এই নয় যে মসজিদের দাবি ছেড়ে দেওয়া হয়েছিল।

আরও পড়ুন: অযোধ্যা রায়ের পর মোদী: ভারত ভক্তিই মজবুত হোক

  • তাই মুসলমানদের কোনও ভাবে বঞ্চিত করা উচিত হবে না। মসজিদ নির্মাণের জন্য বিতর্কিত স্থান থেকে দূরে কিন্তু অযোধ্যাতেই পাঁচ একর জমি দিতে হবে সরকারকে। যাতে একটি ভব্য মসজিদ সেখানে গড়ে উঠতে পারে।
  • বিতর্কিত জমির মালিকানা নিয়ে শিয়া ওয়াকফ বোর্ডের দাবি খারিজ করে দেয় সুপ্রিম কোর্ট। সেই সঙ্গে বলে রাম লালা বিরাজমান কোনও আইনি ব্যক্তি নয়। নির্মোহী আখাড়াও তাই জমির মালিকানা দাবি করতে পারে না। তারা কেবল রক্ষণাবেক্ষণ করত।
  • আপাতত জমির মালিকানা যাবে সরকারের হাতে। সরকার তিন মাসের মধ্যে একটি ট্রাস্টি বোর্ড তৈরি করবে।
  • বিতর্কিত জমির ভিতরের চত্বর ট্রাস্টি বোর্ডের হাতে তুলে দিতে হবে। ওই ট্রাস্টি বোর্ডই ঠিক করবে তারা সেখানে কী নির্মাণ করবে।
  • বিতর্কিত এলাকায় আইনশৃঙ্খলা ও শান্তি বজায় রাখতে হবে সরকারকেই।
  • রাম মন্দির ন্যাস কমিটির ভূমিকাকেও গুরুত্ব দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।
  • জমির মালিকানা নিয়ে নির্মোহী আখাড়ার দাবি খারিজ করলেও সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ প্রস্তাবিত ট্রাস্টের সদস্য করতে হবে তাদের।
  • প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ জানান, সুপ্রিম কোর্টের রায় হল সর্বসম্মত। রায় নিয়ে পাঁচ জন বিচারপতি সহমত হয়েছেন।

Comments are closed.