শনিবার, সেপ্টেম্বর ২১

গভীর সঙ্কটে জেটলি, নীতীশ-মায়াবতী থেকে এয়ার চিফ মার্শাল, হাসপাতালে হেভিওয়েটদের ভিড়

  • 462
  •  
  •  
    462
    Shares

দ্য ওয়াল ব্যুরো: প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলির অবস্থা আরও সঙ্কটজনক। সেই খবর পেয়েই দিল্লির এইমস হাসপাতালে এখন হেভিওয়েটদের ভিড়। বর্ষীয়ান এই রাজনীতিকের শারীরিক অবস্থার খবর পেয়ে শনিবার হাসপাতালে গেলেন কংগ্রেস নেতা জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া, অভিষেক মনু সিংভি, বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার, উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা বহুজন সমাজ পার্টি নেত্রী মায়াবতী। গিয়েছিলেন রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল এবং এয়ার চিফ মার্শাল বীরেন্দ্র সিং ধানোয়াও। শুক্রবার রাতে দিল্লির এইমস হাসপাতালে যান বিজেপি সভাপতি তথা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এবং কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডাঃ হর্ষবর্ধনও।

গত ৯ অগস্ট হাসপাতালে ভর্তি করা হয় জেটলিকে। তাঁকে দেখতে যান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও। অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ থেকে শুরু করেন একাধিক মন্ত্রী যান প্রাক্তন সতীর্থর শারীরিক অবস্থার খোঁজ নিতে। গত সপ্তাহের শুক্রবার এইমস মেডিক্যাল বুলেটিন প্রকাশ করে জানায়, প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী তথা বিশিষ্ট আইনজীবী অরুণ জেটলির অবস্থা স্থিতিশীল। জেটলির চিকিৎসার জন্য ছুটি বাতিল করে ভিয়েতনাম থেকে দিল্লি ফিরে আসেন এইমস-এর ডিরেক্টর। চলতি সপ্তাহের মাঝামাঝি এইমস সূত্রে জানা গিয়েছিল কিছুটা উন্নতি হয়েছে জেটলির শারীরিক অবস্থার।

বেশ কিছুদিন ধরেই ক্যানসারে ভুগছেন এই বর্ষীয়ান রাজনীতিক। গত বছর একটা বড় সময় চিকিৎসার জন্য বিদেশে ছিলেন। সেই সময় অন্তর্বর্তী অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন পীযূষ গোয়েল। দ্বিতীয়বার বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে বিজেপি ক্ষমতায় আসার পরই জেটলি চিঠি লেখেন নরেন্দ্র মোদীকে। জানিয়ে দেন, “আমায় আর মন্ত্রিসভায় রাখার কথা ভাববেন না। আমার শারীরিক অবস্থা যা, তাতে আমার পক্ষে দায়িত্ব সামলানো মুশকিল।”

Comments are closed.