শনিবার, সেপ্টেম্বর ২১

কয়েক মিনিট আগেই বিয়ে হয়েছে… ভয়াবহ দুর্ঘটনায় পিষে গেলেন ১৯-২০ বছরের বর-কনে!

দ্য ওয়াল ব্যুরো: তখনও রেশ কাটেনি তাদের। ছোট্টবেলার প্রেমে বিয়ের ছাপ পড়ার কয়েক মিনিটও হয়নি। চার্চের পবিত্র ঘরে, ঈশ্বরের সামনে একে অপরের সঙ্গে বিয়েতে বাঁধা পড়েছিলেন ১৯-২০ বছরের দুই তরুণ-তরুণী। ফাদারের অনুমতির পরে ঠোঁটে ঠোঁট ঠেকিয়েছিলেন পরস্পরের। তার পরে কিছু মিনিট গড়িয়েছে হয়তো, দুর্ঘটনায় পিষে গেলেন দু’জনেই।

দুঃসহ এই ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার, টেক্সাসে। ১৯ বছরের হারলে মরগ্যান এবং ২০ বছরের রিয়ানন বোডরিআক্সের বন্ধুত্ব সেই ছোট্টবেলা থেকে। কিশোর বয়সে সে বন্ধুত্ব গড়ায় প্রেমে। সাবালক হওয়ার পরে বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন তাঁরা। সেই মতোই দীর্ঘ পরিকল্পনার শেষে, দুই পরিবারের উপস্থিতিতে বিয়েও করেন তাঁরা। গাঢ় স্যুট এবং সাদা গাউনে অপূর্ব দেখাচ্ছিল তাঁদের। বিয়ের পরে চার্চ থেকে বেরোন তাঁরা, রিসেপশনের অনুষ্ঠানে যাওয়ার জন্য। কিন্তু যাওয়া হল না।

পুলিশ জানিয়েছে, গির্জা থেকে বেরিয়ে সদ্যপরিণীতা স্ত্রী-কে নিয়ে নিজেই গাড়ি চালাচ্ছিলেন ১৯ বছরের হারলে। রিসেপশনের অনুষ্ঠানে যাচ্ছিলেন তাঁরা। পেছনেই অন্য কয়েকটি গাড়িতে ছিলেন দু’জনের পরিবারের সদস্যরা।আচমকা একটা বিশাল ট্রাক এসে জোর ধাক্কা দেয় হারলে-রিয়াননের গাড়িটি! প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, কয়েক বার শূন্যে পাক খেয়ে আছড়ে পড়ে গাড়িটি। মুহূর্তেই রক্তে ভেসে যায় বিয়ের পোশাক পরা দু’টি তরুণ শরীর। ছিন্নভিন্ন হয়ে যায় ফুলের তোড়া।

ঘটনায় গ্রেফতার করা হয়েছে ট্রাকের চালককে। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্ত চালক মদ্যপ ছিল না। শোকে ভেঙে পড়েছে বর-কনের পরিবারের সদস্যরা। হারলের মা বলেন, “চোখের সামনে চলে গেল আমার দু’-দু’টো সন্তান। আমি কিছু করতে পারলাম না। আমার হাতে ওদের রক্ত লেগে রইল। আমাদের সারা জীবন তাড়া করবে এই দৃশ্য।”

Comments are closed.