রবিবার, ডিসেম্বর ৮
TheWall
TheWall

কলকাতার পুজোয় ভিআইপি কার্ড তুলে দিলেন মমতা, নতুন কার্ড কারা পাবেন তাও বলে দিলেন

দ্য ওয়াল ব্যুরো: পুজোয় ভিআইপি পাস আর নয়, এমনই নির্দেশ দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে সিনিয়র সিটিজেন বা বিশেষ আমন্ত্রিত অতিথিদের জন্য কার্ড থাকাটা প্রয়োজন বলেই দাবি করেছিল পুজো কমিটিগুলো। সেই প্রেক্ষিতেই বুধবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোধ্যায় পুজোর কার্ডের অনুমতি দিয়েছেন। তবে এই কার্ড ভিআইপি কার্ড হিসেবে বিলি করা হবে না। কার্ডের নতুন নামও বাতলে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। এখন থেকে ‘ক্লাব ইনভাইটি কার্ড’ হিসেবেই পুজোর বিশেষ পাস আমন্ত্রিতদের দিতে পারবে পুজো কমিটিগুলো।

গত শনিবার পুজো কমিটিগুলির সঙ্গে বৈঠকে দর্শনার্থীদের জন্য ভিআইপি সুবিধে নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী তাঁর আপত্তির কথা জানান। মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য, কেন সবাই লাইন দিয়ে পুজো প্যান্ডেলে যাবেন না? মঞ্চ থেকেই তিনি মেয়র ফিরহাদ হাকিম এবং মন্ত্রী সুজিত বসু ও অরূপ বিশ্বাসদের নির্দেশ দেন, ভিআইপি পাসের ব্যবস্থা যাতে দ্রুত বন্ধ হয়।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, প্রবীণ ও প্রতিবন্ধীদের জন্য পুজো মণ্ডপগুলিতে বিশেষ গেট থাকবে। পাড়ার বাসিন্দাদের জন্যও থাকবে সুবিধা। সেই জন্যই এই কার্ড। তবে গেস্ট কার্ড বা ভিআইপি কার্ড হিসেবে নয়। মুখ্যমন্ত্রীর কথায়, পুজো মণ্ডপের লাইনে কেউ ভিআইপি পাস দেখিয়ে আগে ঢুকে যাবে, বাকিরা দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে থাকবে, এমনটা আর হবে না। ‘ক্লাব ইনভাইটি’ কার্ড শুধুমাত্র বয়স্ক, বিশেষভাবে সক্ষম এবং শিশুরাই ব্যবহার করতে পারবে। সুবিধা পাবেন পাড়ার বাসিন্দারাও।

মুখ্যমন্ত্রীর এই ঘোষণার পরে সমস্যায় পড়েছেন অনেক পুজো কমিটির কর্তারাই। তাঁদের বক্তব্য, বেশিরভাগ পুজো কমিটিগুলিকে স্পনসরদের সাহায্য নিয়ে পুজোর খরচের টাকা তুলতে হয়। কাজেই, সেই সব কর্পোরেট কর্তাদের অন্যদের সঙ্গে লাইনে দাঁড়াতে বললে তা অস্বস্তির কারণ হয়ে দাঁড়াবে। তা ছাড়া ভিআইপি কার্ড না দিতে পারলে, মোটা অঙ্কের চাঁদা বা স্পনসর পাওয়াও মুশকিল হবে বলে আশঙ্কা অনেকের।

আরও পড়ুন:

পুজোয় অনুদান ৭০০০০০০০০ টাকা, মমতা বললেন ‘গরিব সরকার’

Comments are closed.