বুধবার, সেপ্টেম্বর ১৮

সপ্তমী থেকে দশমী, পুজোর মেজাজে কেমন সাজলেন অপরাজিতা?

মধুরিমা রায়

বারোয়ারি পুজো। দেশের গণ্ডি ছাড়িয়ে  দুর্গা পুজো এখন বিশ্বজনীন। উৎসবমুখরতায় বুঁদ আট থেকে আশি। পুজোর চার দিনের সাজসজ্জাতেও তাই অভিনবত্বের ছোঁয়া। কেতাদুরস্ত পোশাকে জেন এক্স ও জেন ওয়াই অনেক বেশি ট্রেন্ডি। কারণ বর্তমান যুগে ফ্যাশনই হল স্টাইল স্টেটমেন্ট। মানানসই পোশাকের সঙ্গে ফ্যাশনের দোস্তি না হলে পুরো সাজটাই মাটি।  পুজোয় সেই ধারাবাহিকতাকে বজায় রাখতেই নতুন প্রয়াস বিখ্যাত ফ্যাশন ডিজাইনার এবং সল্টলেকের এনআইএফডি’র প্রধান জন সেনগুপ্তের। অভিনেত্রী অপরাজিতা ঘোষের পুজোর ফ্যাশনের জন্য তিনি তৈরি করেছেন বেশ কিছু ট্রেন্ডি আউটফিট।

সপ্তমীর সাজে অপরজিতা রেখেছেন একটা সুন্দর অ্যালাইন ফ্রক। শরতের আকাশে পেঁজা তুলোর মতো মেঘের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নীল ডেনিমের মিশেলে সাদা রঙের সেই ফ্রক অসামান্য। এক ঝলক দেখলে মনে হবে মুঠোভর্তি কাশফুল যেন। স্নিগ্ধতায় আপনার দিকেই চেয়ে থাকবে সবাই। অষ্টমীর সাজে অপরাজিতার চেহারায় এক আধুনিক আত্মনির্ভরশীল মহিলার বৈশিষ্ট্যকে প্রাধান্য দিয়ে চেক অ্যালাইনের পোশাকে সাজিয়েছেন জন। নবমীতে পার্টি মেজাজ। পোশাকেও তারই ছোঁয়াচ। সিল্ক ও জর্জেট দিয়ে  তৈরি পোশাক এ দিন পরবেন অপরাজিতা। যাতে বজায় থাকবে মার্জিত রহস্যময় মেজাজ। নবমীর রেশ কাটতে না কাটতেই হাজির হবে দশমী। আনন্দ ও বিষাদ, আশা-আশঙ্কার দোদুল্যমানতায় আগামীর অপেক্ষা। আবার ছুটির মেজাজের পর ইঁদুর দৌড়ের ফাঁদ। সমগ্র বাঙালি জাতির মন খারাপ হয় এই দিনে। তাই দশমীর লুকে অপরজিতার পোশাকে আধুনিকতার সঙ্গে মনখারাপের মিশেলের ব্যবহার করেছেন জন। পোশাকে তাই দুধসাদা রঙের মেজাজ।

ছবি সৌজন্যে- সায়ন্তন সরকার

Comments are closed.