রবিবার, মার্চ ২৪

জানেন হাঁচি দিলে কেন বলা হয় ‘God Bless You’?

দ্য ওয়াল ব্যুরো: অনেক সময়ে আমরা না জেনেই অনেক কাজ করে থাকি। খানিকটা অভ্যাসবশত। কখনও জানতে চাই না কেন করছি। এরকম কাজের তালিকা কিন্তু বেশ লম্বা। এরই মধ্যে একটা হলো হাঁচি দেওয়ার পরেই বলা “GOD BLESS YOU” বা “BLESS YOU”। যিনি হাঁচি দেন তিনি নিজেও এ কথা বলেন। অথবা তাঁর আশেপাশে উপস্থিত মানুষরাও এ কথা বলতে পারেন।

কিন্তু কেন এমনটা বলেন তা ভেবে দেখেছেন কখনও? এ বিষয়ে নানা মুনির নানামত। তবে অনুমান, কুসংস্কার থেকেই এই কথা বলা হয়। প্রাচীনকালে মনে করা হত হাঁচির সময়ে শরীরের মধ্যে থাকা ইভিল স্পিরিট বা দুষ্ট আত্মা বেরিয়ে আসতে চাইছে। তাকে আটকাতেই স্মরণ করা হতো ঈশ্বরের। অর্থাৎ নেগেটিভ পাওয়ারের থেকে কাছের মানুষকে বাঁচাতেই তাকে ঈশ্বরের কথা মনে করানো হত। আবার অনেক ক্ষেত্রে মনে করা হয়, হাঁচির সময়ে হৃদস্পন্দন কিছুক্ষণের জন্য আটকে যায় তাই সেই সময়ে যাতে কোনও বিপদ না হয় সে জন্য স্মরণ করা হয় ভগবানকে। বলা হয় ‘GOD BLESS’। তবে কেবল প্রাচীন কালে নয় বর্তমানেও মানুষের মধ্যে এই বিশ্বাস যথেষ্ট পরিমাণ কাজ করে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

তবে ইতিহাস ঘাঁটলে উঠে আসে আরও কিছু যুক্তি। একসময়ে পশ্চিমী দুনিয়ায় মহামারীর আকার ধারণ করেছিল ‘প্লেগ’।৫৪১-৫৪২ খ্রীষ্টাব্দে পূর্ব রোমান সাম্রাজ্য প্রায় ধ্বংস হয়ে গিয়েছিলে এই রোগে। পোপ প্রথম জর্জের একটি বিশ্লেষণে জানা গিয়েছে, সেই সময়ে কেউ হাঁচলে তাকে গড ব্লেস বলার সময়, যিনি বলছেন তাঁর মুখের কাছে আঙুল দিয়ে ক্রস চিহ্ন করা হত। এটা ছিল প্লেগের ভাইরাসকে ঠেকানোর ব্যবস্থা।

এক এক জায়গায় এক একরকম ভাবে লোকজনকে হাঁচির সময়ে এই কথা বলা হয়। স্পেনে লোকজন বলেন “salud”, আবার জার্মানিতে বলা হয় “gesundheit”। দু’ক্ষেত্রেই এই কথার অর্থ সুস্বাস্থ্য। আবার “slainte” ব্যবহার করেন যারা তাঁরাও অন্যের জন্য ভালো থাকার কামনাই করেন। বাঙালিরা বলে থাকেন “jeebo”। নিশ্চয় বাড়িতে কেউ না কেউ কখনও না কখনও একথা বলেছেন আপনার হাঁচির সময়ে। কারণ কিন্তু একই। ভালো থাকার শুভেচ্ছা।

Shares

Comments are closed.