মঙ্গলবার, নভেম্বর ১২

আর ঝেঁপে বৃষ্টি না হলে রাতের মধ্যেই নামবে জমা জল, আশ্বাস মেয়র ফিরহাদ হাকিমের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: মুম্বইয়ের তুলনায় কলকাতার ড্রেনেজ ব্যবস্থা ভালো, এমনটাই দাবি করেছেন মেয়র ফিরহাদ হাকিম। সেই সঙ্গে শহরবাসীকে আশ্বাস দিয়ে বলেছেন, সে ভাবে আর বৃষ্টি না হলে শনিবার রাতের মধ্যেই নামবে জমা জল।

রাতভর টানা বৃষ্টিতে বেহাল কলকাতা। শুক্রবার রাত থেকেই মুষলধারায় চলছে বৃষ্টি। শনিবার সকাল থেকেও ভারী বর্ষণে ডুবেছে কলকাতা। বেলা গড়াতে একটু কমেছে বৃষ্টির তেজ। তবে আগামী ৪৮ ঘণ্টা দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় বজ্র বিদ্যুৎ সহ ভারী বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস দিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর।

এ দিকে শনিবার বেলার দিকে বৃষ্টি একটু কমার পর বিভিন্ন পাম্পিং স্টেশন পরিদর্শনে যান মেয়র ফিরহাত হাকিম। ধাপা, মোমিনপুর, বেহালার বিভিন্ন পাম্পিং স্টেশন ঘুরে মেয়র জানিয়েছেন, আর অস্বাভাবিক পরিমাণে বৃষ্টি না হলে আশা করা যাচ্ছে কলকাতার বিভিন্ন অংশের জমা জল রাতের মধ্যেই নেমে যাবে। তবে নিচু এলাকাগুলোতে জল নামতে একটু সময় লাগবে বলে জানিয়েছেন তিনি। পাশাপাশি তিনি এ-ও বলেছেন যে নিচু এলাকা বিশেষ করে বেহালা, খিদিরপুর চত্বরে আরও পামিং স্টেশন প্রয়োজন। আগামী দিনে সেগুলো বসানোর ব্যবস্থা করা হবে। এ ছাড়াও মেয়র বলেন, “তুমুল বৃষ্টিতে জল জমে মানুষের যা ভোগান্তি হয়েছে সে জন্য আমি আন্তরিক ভাবে দুঃখিত। তবে সব তো আমাদের হাতে থাকে না। কিন্তু এখানকার ড্রেনেজ ব্যবস্থা মুম্বইয়ের তুলনায় ভালো। আর সাংঘাতিক বৃষ্টি না হলে রাতের মধ্যেই আশা করা হচ্ছে জল নেমে যাবে।”

গত ২৪ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে টানা বৃষ্টি হয়েছে কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায়। কন্ট্রোল রুম খুলেও পরিষেবা সচল রাখতে হিমসিম খেতে হয়েছে পুরসভাকে। পরিস্থিতি সামাল দিতে আবহাওয়া দফতরের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে নবান্নের তরফে। ২৪ ঘণ্টা নবান্নর বিপর্যয় মোকাবিলাকারী বিভাগের কন্ট্রোল রুম থেকে চলছে নজরদারি। তবে এত কিছুর পরেও জল জমে বেহাল শহর। প্রতিবারের মতোই বেহাল দশা বেহালার। জম জমেছে উত্তর থেকে দক্ষিণ সর্বত্র। বানভাসি কলকাতায় তীব্র যানজটে নাকাল হচ্ছেন নিত্যযাত্রীরা।

এ দিকে আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশ সংলগ্ন এলাকায় তৈরি হয়েছে ঘূর্ণাবর্ত। সেই ঘূর্ণাবর্ত ক্রমশ সক্রিয় হয়ে ওঠাতেই এই বৃষ্টি হচ্ছে। এ ছাড়াও রাজ্যে উপর সক্রিয় রয়েছে মৌসুমী অক্ষরেখা। তাই রবিবার পর্যন্ত ভারী বর্ষণের সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে হাওয়া অফিস।

  •  
  •   
  •   
  •   
  •   
  •   

Comments are closed.