বুধবার, নভেম্বর ২০
TheWall
TheWall

পার্থর বাড়ির দিকে বিক্ষোভ মিছিল আটকাল পুলিশ, রাস্তায় অবস্থান শিক্ষকদের

  • 436
  •  
  •  
    436
    Shares

দ্য ওয়াল ব্যুরো: গত কয়েক মাসে একাধিক শিক্ষক বিক্ষোভের সাক্ষী থেকেছে শহর কলকাতা। কখনও প্রাথমিক শিক্ষকদের আন্দোলন তো কখনও পার্শ্বশিক্ষকদের আন্দোলন। বুধবার ফের প্রাথমিক শিক্ষকদের আন্দোলনে উত্তাল কলকাতা। এবার আর কোনও দফতর নয়। প্রায় লক্ষাধিক শিক্ষক-শিক্ষিকার মিছিল হাঁটতে শুরু করল শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়ির দিকে। যাদবপুর এইট বি বাস স্ট্যান্ড থেকে শুরু হওয়া মিছিল পুলিশ আটকে দিল বাঘাযতীন মোড়ে।

গত জুলাই মাসে দীর্ঘ অনশনের পর জয় পেয়েছিলেন প্রাথমিক শিক্ষকরা। দাবি ছিল গ্রেড পে বাড়াতে হবে। শেষমেশ আন্দোলনের তীব্রতার সামনে মাথা ঝোঁকাতে হয় সরকারকে। ২৬০০ টাকা থেকে বেড়ে প্রাথমিক শিক্ষকদের গ্রেড হয় ৩৬০০টাকা। কিন্তু তারপর দেখা দিয়েছে অন্য সমস্যা।

প্রাথমিক শিক্ষক আন্দোলনের অন্যতম নেত্রী পৃথা বিশ্বাস জানিয়েছেন, গ্রেড পে বাড়লেও পে-ব্যান্ডের ক্ষেত্রে কোনও পরিবর্তন হয়নি। অর্থাৎ যার ভিত্তিতে বেতনের বেসিক বৃদ্ধি পাওয়ার কথা তা প্রায় কিছুই হয়নি। তাঁর বক্তব্য, এতে প্রতিমাসে অসংখ্য প্রাথমিক শিক্ষক কয়েক হাজার টাকা হাতে কম পাচ্ছেন। হিসেব করে দেখা যাচ্ছে, আসলে গ্রেড পে বেড়েছে ৩০০টাকা। বলা হয়েছিল মাদ্রাসা শিক্ষকদের সঙ্গে প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতনে বৈষম্য থাকবে না। কিন্তু বাস্তবে তা হয়নি।

প্রাথমিক শিক্ষক সংগঠন উস্থির দাবি, এই বেতন কাঠামো নিয়ে শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করা হয়েছিল। তাঁদের সমস্যার কথা তাঁরা জানিয়েছিলেন। মন্ত্রী, সংশ্লিষ্ট আধিকারিকরা সহমতও হয়েছিলেন। কিন্তু কোনও সুরাহা হয়নি।

এদিনের বিরাট মিছিলের মুখ যখন বাঘাযতীন মোড়ে তখনও মিছিলের শেষ অংশ যাদবপুর এইট বি বাসস্ট্যান্ডে। ব্যারিকেড করে রাস্তা আটকায় পুলিশ। সেখানেই অবস্থানে বসে পড়েন শিক্ষক-শিক্ষিকারা। অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে যাদবপুর, বাঘাযতীন। শিক্ষক সংগঠনের পক্ষ থেকে পৃথা বিশ্বাস স্পষ্ট জানিয়ে দেন, যতক্ষণ না শিক্ষামন্ত্রী তাঁদের দাবি শুনছেন, ততক্ষণ অবস্থান চলবে। এরপর বিকেল সাড়ে চারটে নাগাদ জানা যায়, শিক্ষামন্ত্রীর তরফে শিক্ষক সংগঠনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। তিনজন প্রতিনিধি গিয়েছেন পার্থ চতটোপাধ্যায়ের নাকতলার বাড়িতে। অন্যদিকে অবস্থান চলছে বাঘাযতীন মোড়ে।

Comments are closed.