বুধবার, মার্চ ২০

শ্রীকান্ত মোহতা গ্রেফতার, পার্থ বললেন গণতন্ত্রে বিপদের লক্ষণ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: তৃণমূলের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক ছিল বললে কম বলা হয়। ফিল্ম প্রযোজক শ্রীকান্ত মোহতা কেবল তৃণমূল কংগ্রেসের সদস্য ছিলেন তা নয়, চোদ্দ এবং ষোল সালের ভোটে তৃণমূলের স্টার প্রচারকদের তালিকায় তাঁর নাম ছিল। ফলে বৃহস্পতিবার রোজভ্যালি চিটফান্ড কাণ্ডে সিবিআই শ্রীকান্ত মোহতাকে গ্রেফতার করার পর, তাঁর পাশেই দাঁড়াল তৃণমূল। দলের মহা সচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় বললেন,“গণতন্ত্রের জন্য অশুভ লক্ষণ”।

এ দিন জঙ্গলমহল উৎসবে যোগ দেওয়ার জন্য ঝাড়গ্রামে গিয়েছিলেন পার্থবাবু। সেখানেই সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সিবিআইকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য নিয়ে অপব্যবহার করা হচ্ছে। চলচ্চিত্র ক্ষেত্রে, শিল্প ক্ষেত্রে, রাজনীতিকদের সিবিআইয়ের ভয় দেখিয়ে দমন করার চেষ্টা চলছে। এই পরম্পরা গণতন্ত্রের জন্য ভাল হচ্ছে না। সিবিআই বিজেপি-র দলদাসে পরিণত হয়েছে।

আরও পড়ুন #Breaking: ভেঙ্কটেশ ফিল্মসের কর্ণধার শ্রীকান্ত মোহতাকে গ্রেফতার করল সিবিআই

শ্রীকান্ত মোহতার বিরুদ্ধে অভিযোগ, কয়েকটি ছবি প্রযোজনা করার জন্য রোজভ্যালির কর্ণধার গৌতম কুণ্ডুর থেকে ২৫ কোটি টাকা নিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু কথা রাখেননি শ্রীকান্ত। টাকাও ফেরত দেননি, উল্টে শাসক দলের সংস্পর্শে থাকার সুবাদে গৌতম কুণ্ডুকে শ্রীকান্ত হুমকিও দিয়েছিলেন বলে অভিযোগ। তাই তাঁর বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলা করেছে সিবিআই।

প্রসঙ্গত, গত কয়েক মাসে অন্তত পাঁচ বার সিবিআই দফতরে তলব করা হয়েছিল শ্রীকান্তকে। তাঁর কাছে থাকা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আঁকা ছবি তিনি সিবিআইয়ের কাছে জমা দিয়েছেন বলেও খবর। গোটা ব্যাপারটা যে ক্রমশ তাঁকে গ্রেফতারের দিকেই এগোচ্ছে তা এক প্রকার বোঝাও যাচ্ছিল।

শ্রীকান্ত মোহতার গ্রেফতার নিয়ে সরাসরি কোনও মন্তব্য না করলেও বিজেপি নেতা মুকুল রায় এ দিনও সিবিআই তদন্ত প্রসঙ্গে তৃণমূলকে কটাক্ষ করেন। তিনি বলেন, তৃণমূলের মন্ত্রীরা রাতে ঘুমোতে পারছেন না। টুং করে আওয়াজ হলেই উঠে পড়ছেন, ভাবছেন এই বুঝি সিবিআই এলো। বিছানা ছেড়ে লাফিয়ে লাফিয়ে উঠছেন।

রাজনৈতিক সূত্রের মতে, শ্রীকান্তকে গ্রেফতারের ঘটনা টলি পাড়ার মধ্যে ভয় ঢুকিয়ে দিতে পারে। কারণ, অভিনেতা দেব-কে তৃণমূলে সামিল করানো থেকে শুরু করে তৃণমূলের মঞ্চে টলি পাড়ার অভিনেতা-অভিনেত্রীদের হাজির করানোর নেপথ্যে শ্রীকান্ত মোহতার বড় ভূমিকা ছিল বলেই অনেকে মনে করেন। শ্রীকান্ত গ্রেফতার হওয়ার পর লোকসভার ভোটে টলি পাড়া তৃণমূলের প্রচারে কতটা সক্রিয় থাকে এখন সেটাই দেখার। তৃণমূলের এক নেতার কথায়, সিবিআইয়ের পাশাপাশি এখন আয়কর দফতরও সক্রিয়। ক্লাবগুলিকে ডেকে বলছে হিসাব দিতে। ওরা কি টলি পাড়া কে ছেড়ে দেবে? কে জানে!

আরও পড়ুন: মুখ্যমন্ত্রীর পাশে যত তারকা তাঁদের ডিরেক্টর শ্রীকান্তই: সূর্য

মুখ্যমন্ত্রীর পাশে যত তারকা তাঁদের ডিরেক্টর শ্রীকান্তই: সূর্য

 

The Wall-এর ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন 

Shares

Comments are closed.