এত তাড়া! ঘুমন্ত সন্তানকে ট্যাক্সিতে ফেলে চলে গেলেন মা-বাবা

৮৭০

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ট্যাক্সি হোক বা ক্যাব, কিংবা বাস-ট্রেন-অটো ভুল করে বা অন্যমনস্কতায় অনেক সময়েই অনেকে টুকটাক অনেক জিনিস ফেলে আসেন। অনেকের আবার এই ক্ষেত্রে বড় বিপদও হয়েছে। কেউবা হারিয়েছে ব্যাগ, কেউবা ছাতা, কেউ আবার দরকারি কাগজপত্র। তবে সম্প্রতি এক দম্পতি নিজের ঘুমন্ত সন্তানকেই ট্যাক্সিতে ফেলে রেখে চলে গিয়েছেন। শেষ পর্যন্ত ট্যাক্সি চালক আর পুলিশের সহায়তায় বাচ্চাটি উদ্ধার হয়েছে। তাকে তার মা-বাবার কাছে পৌঁছে দেওয়া সম্ভব হয়েছে।

এমন ঘটনা ঘটেছে কলকাতাতেই। সোশ্যাল মিডিয়ায় এ খবর শেয়ার করা হয়েছে বিধাননগর সিটি পুলিশের তরফে। জানা গিয়েছে, গতকাল সন্ধ্যায় এয়ারপোর্ট থেকে আলমবাজার যাওয়ার জন্য প্রিপেড ট্যাক্সি বুক করেছিলেন এক ব্যক্তি। স্ত্রী এবং সন্তানকে নিয়ে ট্যাক্সিতে ওঠেন তিনি। গন্তব্যে পৌঁছেই তাড়াহুড়ো করে নেমে যান তাঁরা। এরপর গাড়ি নিয়ে অন্যদিকে চলে যান চালক। বেশ খানিকক্ষণ পর তার নজরে আসে পিছনে সিটে রয়েছে এক ঘুমন্ত শিশু। পিছন ফিরে সিটের দিকে তাকিয়ে কার্যত হতবাক হয়ে যান ট্যাক্সি চালক। আন্দাজ করেন যে আলমবাজারে যে যাত্রীদের নামিয়েছেন সম্ভবত তাঁরাই তাঁদের ঘুমন্ত সন্তানকে ট্যাক্সিতে ফেলে চলে গিয়েছেন।

প্রথমে খানিকটা হতভম্ব হয়ে গেলেও পরমুহূর্তে বুদ্ধি করে এনএসসিবিআই ট্র্যাফিক গার্ডে ফোন করেন ওই ট্যাক্সি চালক। খুলে বলেন পুরো ঘটনা। এরপর ওই ট্যাক্সি চালকের সাহায্যে বাচ্চাটির পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করে পুলিশ। সব প্রমাণপত্র দেখিয়ে বাচ্চাটিকে এসে নিয়ে যায় তার বাবা।

এদিকে সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ঘটনা ছড়িয়ে পড়তেই বাচ্চাটির বাবা-মায়ের দায়িত্বজ্ঞানহীনতা নিয়ে রীতিমত তুলোধোনা শুরু করেছেন নেটিজেনরা। অভিভাবক কী করে এতটা গাফিলতি করতে পারে তাই নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন। অনেকেই বলেছেন যদি কোনও কারণে ওই ট্যাক্সি চালক ভাল মানুষ না হতেন, সুযোগের ব্যবহার করতেন বা তাঁর কোনও বদ মতলব থাকত তাহলে ভয়ঙ্কর বিপদ হতে পারত ওই একরত্তির সঙ্গে। যার জন্য দায়ী থাকতেন একমাত্র বাচ্চাটির মা-বাবা।
অনেকেই আবার সংশয় প্রকাশ করে বলেছেন সত্যিই কী কোনও মা-বাবা এমন ভুল করতে পারেন, এতটা গাফিলতি করতে পারেন? এই ঘটনা সঠিক তদন্তের দাবি জানিয়েছেন অনেকে। কেউ কেউ আবার বাচ্চাটির বাবা-মায়ের শাস্তির নিদানও দিয়েছেন, যাতে তাঁদের উচিত শিক্ষা হয়। তবে বাচ্চাটির বাবা-মায়ের দায়িত্ববোধ নিয়ে হাজার প্রশ্ন উঠলেও ট্যাক্সি চালকের সততার প্রশংসা করেছেন সকলেই। সেই সঙ্গে পুলিশকেও ধন্যবাদ জানিয়েছেন নেটিজেনরা।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More